মেইন ম্যেনু

শিক্ষক পরিবারের উপর পেট্রোল বোমা নিক্ষেপে শিশুপুত্র নিহত

সাতক্ষীরায় মানববন্ধন

সাতক্ষীরার কলারোয়া শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রী কলেজের দর্শন বিভাগের অধ্যাপক খলিলুর রহমানের দুই শিশু সন্তান ও স্ত্রীকে গভীর রাতে ঘুমন্ত অবস্থায় পেট্রোল বোমা মেরে দগ্ধ ও চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিশুপুত্র তামিম নিহতের প্রতিবাদে এবং আসামীদের গ্রেফতারও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে শহরের নিউমার্কেটের সামনে মানব বন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়েছে। বাংলাদেশ কলেজ শিক্ষক সমিতি সাতক্ষীরা শাখার আয়োজনে মানব বন্ধন কর্মসূচীতে বক্তব্য রাখেন, শিক্ষক সমিতির সাধারন সম্পাদক মোবাশ্বেরুল হক জ্যোতি, অধ্যক্ষ আব্দুর রহমান, প্রভাষক আজিজুর রহমান, প্রভাষক আবু সাইদ , প্রভাষক জাফর উল ইসলাম বাবু প্রমুখ। বক্তারা অবিলম্বে দোষীদের গ্রেপ্তার ও শাস্তির দাবী জানান। উক্ত মানব বন্ধন কর্মসূচীতে জেলার ৪৫ টি এমপিএ ভূক্ত কলেজ ও স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অংশ গ্রহন করেন।
প্রসঙ্গত ঃ কলারোয়ার লাঙ্গলঝাড়া গ্রামে প্রভাষক খলিলুর রহমানের বাড়ীতে গত ৯ অক্টোবর ভোর রাতে দুর্বৃত্তদের ছোড়া পেট্রোল বোমায় দগ্ধ হয় তার স্ত্রী ঝর্না খাতুন, দুই ছেলে তানভীর হোসেন ওরফে আসাদ (১৩) ও তামিম হোসেন। ওই দিন সকালেই তাদেরকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হতে থাকলে ওই দিনই দুপুরে তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় গতকাল রাতে শিশু তামিম মারা যায়।

কালিগঞ্জ থানা ছাত্রলীগের কর্মী সম্মেলনকে ঘিরে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন:
সাতক্ষীরার কালিগঞ্জ ছাত্রলীগের আসন্ন কাউন্সিলকে কেন্দ্র করে ষড়যন্ত্রের প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। কালিগঞ্জ ডিগ্রী কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম বুধবার দুপুর ১২টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করেন।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, বাংলাদেশ ছাত্রলীগ জন্ম লগ্ন থেকে মাতৃ সংগঠণ বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের পাশে থেকে সাংগঠণিক কার্যক্রমকে মজবুত করার জন্য কাজ করে যাচ্ছে। মুক্তিযুদ্ধের চেতনা লালন ও বঙ্গবন্ধুর নীতি আদর্শের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে ছাত্রজীবনে তিনি ছাত্রলীগ কর্মী হিসেবে বিভিন্ন সামাজিক ও সাংগঠণিক কর্মকা-ে অংশ গ্রহণ করেন। এ ধারার অংশ হিসেবে ২০০৬ সালে কালিগঞ্জ ডিগ্রী কলেজে মানবিক বিভাগে ভর্তির পর থেকে গত বছর পর্যন্ত কলেজ ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক হিসেবে সুনামের সঙ্গে দায়িত্ব পালন করে এসেছেন। চলতি বছরের শুরু থেকে আহবায়ক গৌতম লস্কর ও সদস্য সচীব মঈনুল হোসেনের দূর্ণীতির কারণে বহিষ্কার করে কমিটি ভেঙে দেওয়ার পূর্ব পর্যন্ত উপজেলা ছাত্রলীগের আহবায়ক কমিটির যুগ্ম সাধারন সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উল্লেখ করা হয়, কালিগঞ্জ উপজেলা ছাত্রলীগের কাউন্সিল অধিবেসন ‘আসন্ন। দিন তারিখ নির্ধারণ করা না হলেও তিনি সভাপতি হিসেবে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করার জন্য মানসিক প্রস্তুতি নিয়েছেন। এজন্য সাংগঠণিক কাজ করে যাচ্ছেন।
অপরদিকে বহিষ্কৃত নেতা গৌতম লস্কর একই পদে লড়াই করবে বলে প্রচার রয়েছে। তার পক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের শীর্ষ পর্যায়ের দু’ নেতা অবস্থান নিয়েছেন। তার (সিরাজুল) সাংগঠণিক কার্যক্রম দেখে প্রতিপক্ষরা শুরু থেকেই হতোদ্দম হয়ে পড়েছে। তাই তাকে হারানোর জন্য নতুন করে ষড়যন্ত্র শুরু হয়েছে। এরই অংশ হিসেবে তাকে সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য গত ১৩ অক্টোবর দৈনিক পত্রদূত পত্রিকা ও দৈনিক কালের চিত্র পত্রিকায় ‘কালিগঞ্জে কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সেক্রেটারী আটক, অতঃপর মুক্ত’ শীর্ষক একটি কাল্পণিক প্রতিবেদন ছাপা হয়েছে। যা’ কোন প্রচার মাধ্যমের নীতি ও আদর্শের পরিপন্থি। তিনি এ ধরনের কাল্পনিক প্রতিবেদনের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে সাংবাদিক বন্ধুগণ আগামিতে কারো দারা প্রভাবিত না হয়ে ঘটনার সত্যতা যাঁচাই করে দায়িত্বশীল প্রতিবেদন প্রকাশের প্রত্যাশা করেন।
সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে বিষয়টি তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী, প্রেস কাউন্সিলের সভাপতিসহ প্রশাসনের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ছাত্রলীগ কর্মী ইনামুল হক, আব্দুল জলিল, শফিকুল ইসলাম, ফিরোজ আহম্মেদ ও মুজাহিদ হোসেন।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই