মেইন ম্যেনু

সরকার ‘অবৈধ’ তাই ছায়া বাজেট দেবে না বিএনপি

এ সরকারের মেয়াদের আর ‘ছায়া বাজেট‘ দেবে না বিএনপি। সোমবার দলের একাধিক দায়িত্বশীল সূত্র ও চেয়ারপারসনের কার্যালয়ের প্রেসউইং সূত্র এ কথা নিশ্চিত করেছে।

নবম জাতীয় সংসদের বাজেট ঘোষণার আগে প্রধান বিরোধী দল হিসেবে ‘বাজেট ভাবনা’ শিরোনামে ছায়া বাজেট দিয়েছিলেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। রাজধানীর শেরাটন হোটেলের বল রুমে সে অনুষ্ঠানে দেশের বিশিষ্টজনরা উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে বাজেটে বিভিন্ন দিক তুলে ধরা হয় ও কিছু সুপারিশও রাখা হয়, যদিও সরকার সেসব গ্রাহ্য করেনি। কিন্তু দশম জাতীয় সংসদের এ ‘অবৈধ সরকারের’ মেয়াদে আর ছায়া বাজেট দেবে না বিএনপি।

দশম সংসদের প্রথম বাজেট অধিবেশন শুরু হচ্ছে আগামী ৩ জুন। অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত ৫ জুন সংসদে আগামী অর্থবছরের (২০১৪-১৫) প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করবেন।

গত ২৪ মে জাতীয় প্রেসক্লাবে আইনজীবী সমাবেশে বাজেট ভাবনা না দেয়ার ইঙ্গিত দেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি বলেন, ‘অবৈধ সরকারের বাজেট পাস করার অধিকার নেই। এটি বাজেট বলে গণ্য হবে না। এর জন্য আজ না হয় কয়েকদিন পর জবাবদিহি করতে হবে। কারণ এই সংসদে জনপ্রতিনিধি নেই। ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের ভোট কেন্দ্রে জনগণ যায়নি, কুকুর বসা ছিল।’

এ যুক্তিতে বিএনপি মনে করে, এই সরকার অবৈধ, সংসদ অধিবেশনও অবৈধ। যে সংসদকে জনগণ মূল্যায়ন করে না সেই সংসদে বাজেট পেশ ও পাসের কোনো অর্থ নেই।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির বাজেট ভাবনা তৈরির সদস্য চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘বিএনপি এই সরকারকে ‘অবৈধ’ ঘোষণা করেছে। তাই অবৈধ সরকারের সবই অবৈধ। তাই বাজেট ভাবনা অনুষ্ঠান হচ্ছে না। তা ছাড়া গত পাঁচ বছর বিরোধী দলে থাকাকালে বাজেট ভাবনা অনুষ্ঠানে বিভিন্ন দিক তুলে ধরলেও সরকার ওই ভাবনা থেকে কোনো কিছুই গ্রহণ করেনি।’

চেয়ারপারসনের প্রেস সচিব মারুফ কামাল খান সোহেল বলেন, ‘যেহেতু বিএনপি এই সরকারকে অবৈধ ঘোষণা করেছে, তাই এই সরকারের সব কিছুই অবৈধ। তাই মনে হয় না এবার বিএনপি চেয়ারপারসন ছায়া বাজেট দিবেন। সেরকম প্রস্তুতিও নেই।’

বিএনপির প্রচার সম্পাদক জয়নুল আবদীন ফারুক এ ব্যাপারে বলেন, ‘কীসের ছায়া বাজেট? এই সরকার অবৈধ। বিএনপি চেয়ারপারসন তো বলেই দিয়েছেন এই অবৈধ সরকারের বাজেট পাশের কোনো অধিকার নেই। তাই এই সরকারের মেয়াদে কোনো বাজেট ভাবনা দেবে না বিএনপি। এই সরকারের বাজেট দেয়ার কোনো অধিকার নেই।’



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই