মেইন ম্যেনু

সরকারের একার পক্ষে উন্নয়ন সম্ভব নয়

সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দিপু মনি বলেছেন, ‘সব উন্নয়ন সরকারের একার পক্ষে সম্ভব নয়। এ ক্ষেত্রে সরকার, সিভিল সোসাইটি, প্রাইভেট সেক্টরগুলো যৌথ সমন্বয়ের মাধ্যমে কাজ করতে হবে।’

শুক্রবার দুপুরে ইক্যুইটি অ্যান্ড জাস্টিস ওয়াকিং গ্রুপ বাংলাদেশ (ইক্যুইটি বিডি) আয়োজনে ‘জনগণের আঞ্চলিকতাবাদ: জলবায়ু পরিবর্তন ও খাদ্য নিরাপত্তায় সার্ক’ শীর্ষক এক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

জলবায়ু সমস্যা সমাধাণে প্রাইভেট সেক্টরকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, ‘পাবলিক সেক্টরের এত টাকা নেই, এক্ষেত্রে প্রাইভেট সেক্টরকে এগিয়ে আসতে হবে। তবে এ বিষয়ে সরকার একটি নীতিমালা করে দিবে।’

দিপু মনি বলেন, ‘উন্নত দেশগুলোর বিলাসিতার কারণে আমাদের মত ছোট এবং উন্নয়নশীল দেশগুলোকে অনেক সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়। যেহেতু, তাদের উচ্চ-বিলাসিতার কারণে আমাদের সমস্যায় পড়তে হয় তাই তাদের এ সমস্যা সমাধানে সহযোগীতা করতে হবে। সহযোগীতা যে পাইনি তা নয়। তবে পরিমাণের তুলনায় খুবই কম।’

প্রধানমন্ত্রীর প্রশংসা করে তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনার সঠিক সময়ে সঠিক সিদ্ধান্তের কারণে জলবায়ু নিয়ে সারা বিশ্বে আলোচনা হচ্ছে। এ আলোচনায় আলোচকরা প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যকে গুরুত্ব দেন।
জলবায়ু সমস্যা সমাধানে বিদেশ থেকে কে কত টাকা দিচ্ছে তার উপর নির্ভর না করে সরকার প্রতি বছর বাজেটে ১০০ মিলিয়ন টাকা বরাদ্দ রেখেছে।’

সেমিনারে লিখিত বক্তব্যে ইকুইটিবিডির সৈয়দ আমিনুল হক বলেন, ‘সম্প্রতি প্রকাশিত বিশ্ব খাদ্য নিরাপত্তা সূচক ২০১৪ অনুযায়ী বাংলাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। নাগরিকদের খাদ্য ক্রয় ক্ষমতা, খাদ্যের সহজলভ্যতা এবং খাদ্য মানের উপর বিশ্বের ১০৯টি দেশের মধ্যে যে জরিপ পরিচালিত হয় তাতে বাংলাদেশের অবস্থান ৮৮তম।’

পিপলস সার্ক বাংলাদেশের সভাপতি ড. রশিদ-ই-মাহাবুবের সভাপতিত্বে সেমিনারে আরো উপস্থিত ছিলেন মোস্তফা কামল আকন্দ, মজিবুল হক চুন্নু প্রমুখ। সেমিনারে সঞ্চালনায় ছিলেন স্টেয়ারিং কমিটির সদস্য রেজাউল করিম।






মন্তব্য চালু নেই