মেইন ম্যেনু

‘সকল জেলায় শীঘ্রই বিশুদ্ধ খাদ্য আদালত গঠন’

‘নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩’ এর অধীনে শীঘ্রই দেশের সকল জেলায় বিশুদ্ধ খাদ্য আদালত গঠন করে প্রজ্ঞাপন জারি করা হবে’ বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।

একই সঙ্গে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য আইনটি ‘মোবাইল কোর্ট- ২০০৯’ এর তফসিলভুক্ত করে দুই থেকে তিন দিনের মধ্যে আদেশ জারি করা হবে।

সচিবালয়ে মঙ্গলবার সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে খাদ্যমন্ত্রী এসব কথা বলেন। এর আগে তিনি মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া স্টিফেনস ব্লুম বার্নিকাটের সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘‘নিরাপদ খাদ্য আইন বাস্তবায়নে আমাদের কাজ চলছে। এ আইনের অধীনে ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনার জন্য আইনটি ‘মোবাইল কোর্ট-২০০৯’ এর তফসিলভুক্ত করা হচ্ছে। আইন মন্ত্রণালয়ের ভেটিংয়ের পর দুই-তিন দিনের মধ্যে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে এ বিষয়ে প্রজ্ঞাপন জারি হবে। নতুন আইন কার্যকর হলে ‘পিওর ফুড অর্ডিন্যান্স-১৯৫৯’ বাতিল হয়ে যাবে।’’

তিনি বলেন, ‘এ ছাড়া ঢাকাসহ দেশের সকল জেলায় বিভিন্ন আদালতকে নিরাপদ খাদ্য আদালত হিসেবে ঘোষণা করা হবে। সে বিষয়েও শীঘ্রই প্রজ্ঞাপন জারি করবে আইন মন্ত্রণালয়।’

নিরাপদ খাদ্য আইনের অধীনে ২৩টি বিভিন্ন অপরাধে এক থেকে পাঁচ বছর কারাদণ্ড অথবা চার থেকে ২০ লাখ টাকা পর্যন্ত জরিমানার বিধান রয়েছে।

১ ফ্রেব্রুয়ারি থেকে ‘নিরাপদ খাদ্য আইন-২০১৩’ কার্যকর ঘোষণা করেছে খাদ্য মন্ত্রণালয়। আইনের অধীনে নিরাপদ খাদ কর্তৃপক্ষ গঠন করে চেয়ারম্যানসহ সদস্যদেরও নিয়োগ দেওয়া হয়েছে।

খাদ্য মন্ত্রণালয় থেকে জানা গেছে, আইন হওয়ার আগে অধ্যাদেশে কোনো ব্যক্তি অনিরাপদ খাদ্য উৎপাদন, প্রক্রিয়াকারী বা বিক্রেতার বিরুদ্ধে সরাসরি মামলা দায়ের করতে পারতেন না। বর্তমান আইনে মামলা দায়েরের জন্য কারণ উদ্ভব হবার ৩০ দিনের মধ্যে বিশুদ্ধ খাদ্য আদালতে সরাসরি মামলা করতে পারবেন।






মন্তব্য চালু নেই