মেইন ম্যেনু

শুভ জন্মদিন মাশরাফি

এশিয়ান গেমসে ব্রোঞ্জ জয় করে শনিবার রাত ১০টায় দেশে ফিরেছেন মাশরাফি। ৩১তম জন্মদিনটা একটু অন্যরকমই কাটবে মাশরাফি বিন মর্তুজার। তার জন্মতারিখ ৫ অক্টোবর; অন্যদিকে ৬ অক্টোবর সারাদেশে ঈদুল আজহা তথা মুসলমানদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। তার এক দিন আগে জন্মদিনটা তাই বাড়তি আরেকটা উৎসব করার সুযোগ এনে দিল মাশরাফির জন্য।

১৯৮৩ সালের আজকের দিনে নড়াইলে জন্মেছিলেন তিনি। তার ডাকনাম কৌশিক।

অনূর্ধ্ব-১৯ দল কোনো প্রথম শ্রেণীর ম্যাচ না খেলেই টেস্টে অভিষেক হয়েছিল তার। বৃষ্টিধোয়া সেই ম্যাচে এক ইনিংস বল করেই ৪ উইকেট নিয়েছিলেন মাশরাফি। এর পর আর পেছনে ফিরে তাকাতে হয়নি ‘নড়াইল এক্সপ্রেস’কে। চট্টগ্রামে কিংবা পোর্ট অব স্পেনে, ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের দুটি জয়েই ম্যাচসেরার পুরস্কার তার। শুরুতে শুধু বোলার হিসেবে পরিচয়টা সীমাবদ্ধ থাকলেও এখন তাকে অলরাউন্ডার বললেও ভুল হবে না। ৩৬ টেস্টে ৭৮ উইকেট নেওয়ার পাশাপাশি তিন ফিফটিসহ ৭৯৭ রানও করেছেন তিনি। আর ১৩৯ ওয়ানডেতে উইকেট পেয়েছেন ১৭৪টি, রান করেছেন ১,২৯৮।

২০০৬ ক্রিকেট পঞ্জিকাবর্ষে মাশরাফি ছিলেন এক দিনের আন্তর্জাতিক খেলায় বিশ্বের সর্বাধিক উইকেট শিকারী। তিনি এ সময় ৪৯টি উইকেট নিয়েছেন। ইনজুরি তার সঙ্গে খেলা না করলে তার ক্যারিয়ারটা অন্যরকম হতে পারত। ইনজুরির কারনে অধিনায়কত্ব পেয়ে সেটা উপভোগ করতে পারেননি। গত মঙ্গলবার বিসিবি বোর্ড সভায় আবার ওয়ানডের জন্য অধিনায়ক মনোনীত করা হয় মাশরাফি বিন মর্তুজাকে। দেখার বিষয়, ইনজুরির সঙ্গে যুদ্ধ করে তিনি কতদিন বাংলাদেশকে সাপোর্ট দিতে পারেন। সামনে জিম্বাবুয়ে সিরিজে বল হাতে বোলিং বিভাগের নেতৃত্বের সঙ্গে সঙ্গে দলকে পরিচালনা করার গুরুদায়িত্ব তার হাতে।






মন্তব্য চালু নেই