মেইন ম্যেনু

শিশু কেনাবেচার বাজার

সেই উনবিংশ শতাব্দির মাঝামঝি সময়ে সভ্য সমাজে মানুষের কেনাবেচা বন্ধ হয়ে গেছে। তবে অবাক হওয়ার বিষয় হচ্ছে ভারতে সদ্য রাজ্য হিসেবে স্বীকৃতি পাওয়া তেলেঙ্গানায় প্রকাশ্যে চলে শিশুদের কেনাবেচা। মাত্র কয়েক হাজার রুপির বিনিময়ে এখানে কন্যা সন্তান কিনতে পাওয়া যায়।

জেলার নাম নালগোন্দা। রাজধানী হায়দারাবাদ থেকে ১২০ কিলোমিটার দূরের এই এলাকাটি রাজ্যের সবচেয়ে বেশি পশ্চাদপদ। সম্প্রতি ওই এলাকায় অনুসন্ধানী প্রতিবেদনের জন্য গিয়েছিলেন ভারতীয় বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের এক সাংবাদিক।

এনডিটিভির প্রতিবেদক জানান, মাত্র আধাবেলা ঘুরেই কেনার জন্য শিশুর খোঁজ পেয়ে যান তারা। সরকার পরিচালিত একটি শিশু নিবাসে বিক্রি করা হবে এমন এক কন্যা শিশুর কথা তাদের জানানো হয় । দুইদিন পর তারা ২ মাস বয়সী ভবানী নামে ওই শিশুর খোঁজ পান। বলা হয়, ৩০ হাজার রুপির বিনিময়ে ভবানীকে কিনতে পারবেন তারা।

তিনি জানান, দেবরাকোন্দায় পৌঁছানোর পর স্থানীয় এক অটোরিকশা চালক তাদের একটি শিশু নিবাসে নিয়ে যান। এক মধ্যস্থতাকারী জানান, তারা চাইলেই সেখান থেকে পছন্দ মতো শিশু কিনতে পারবেন। সেখানে ৮-১০ জন মেয়েশিশু ছিল।

কোন ছেলেশিশু আছে কি না জিজ্ঞাসা করলে ওই ব্যক্তি জানান, এখানে কোনো ছেলেশিশু নেই। শিশু কেনার জন্য ওই শিশু নিবাসের দায়িত্বরত কর্মকর্তার সঙ্গে দেখা করতে বলেন তিনি। চাইলে সন্ধ্যার মধ্যে তারা শিশু কিনে চলে যেতে পারবেন বলে ওই মধ্যস্থতাকারী জানায়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, যে সব পরিবার ছেলে শিশু চান তারাই কন্যা শিশুর জম্ম হলে তাকে শিশু নিবাসে ফেলে যান। রাজ্যের উপজাতি এলাকাগুলিতে যেখানে চরম দারিদ্রতা বিরাজ করে তারা টাকার বিনিময়ে কন্যাশিশুটিকে বিক্রি করে ফেলাই বুদ্ধিমানের কাজ মনে করেন।

ভারতের আইন অনুযায়ী, কোন সন্তান দত্তক দিতে চাইলে অবশ্যই চুক্তি হতে হবে এবং তা অ্যাফিডেভিট করতে হবে। এছাড়া প্রকৃত অভিভাবক চাইলে ৯০ দিনের মধ্যে সন্তান ফেরত নিতে পারবেন এটিও চুক্তিতে উল্লেখ থাকতে হবে। তবে শিশু নিবাসগুলি এ ধরণের কোন রেকর্ড রাখে না। ওই শিশুটিকে যে ফেলে দেয়া হয়েছে এই বিষয়টি যাতে কেউ জানতে না পারে সেজন্যই এই ব্যবস্থা।

ওই মধ্যস্থতাকারী বলেন, ‘এক শিশুর পরিবর্তে আরেক শিশু কে জানবে? শিশুর প্রচুর সরবরাহ আছে এখানে।’

তিনি আরও বলেন,‘এক সপ্তাহের মধ্যে শিশুর ব্যবস্থা করা আমাদের দায়িত্ব। আমরা সব জায়গায় খোঁজ লাগাবো এবং হোয়াটস অ্যাপ অথবা ইমেইলে আপনাকে ওই শিশুর ছবি পাঠানো হবে।’

তিনি জানান, এখানে মাত্র ৫ হাজার রুপিতে শিশু কিনতে পাওয়া যায়।






মন্তব্য চালু নেই