মেইন ম্যেনু

শতাধিক দেশে ‘ইসলামি যোদ্ধা’ সক্রিয় : জাতিসংঘ

মধ্যপ্রাচ্য ও আফ্রিকায় ইসলামের নামে চলছে জঙ্গিবাদের তাণ্ডব। এই জঙ্গি কারা? জাতিসংঘ বলছে, বিশ্বের অর্ধেকের বেশি দেশ থেকে ‘ইসলামি যোদ্ধারা’ জঙ্গিবাদের সঙ্গে যুক্ত হয়েছে।

বিশ্বব্যাপী ইসলামি উগ্রবাদীদের অবস্থা কেমন- তা জানতে অনুসন্ধান চালায় জাতিসংঘ। তাদের অনুসন্ধানে ধরা পড়েছে, বিশ্বের ১০০টিরও বেশি দেশের ২৫ হাজারের বেশি ‘ইসলামি যোদ্ধা’ আল-কায়েদা ও ইসলামিক স্টেটের মতো সংগঠনগুলোর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। এ সংখ্যা দিন দিন বাড়ছে। এ-সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদ।

দ্য গার্ডিয়ান অনলাইনের এক খবরে মঙ্গলবার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে আরো বলা হয়েছে, গত নয় মাসে বিশ্বজুড়ে জিহাদির সংখ্যা বেড়েছে ৭০ শতাংশ। বিষয়টি বিশ্বের সার্বিক নিরাপত্তা ব্যবস্থায় ‘সরাসরি ও দীর্ঘস্থায়ী হুমকি’ সৃষ্টি করেছে।

জিহাদিদের সংখ্যা দ্রুতই বাড়ছে। কিন্তু কেন? এর সঠিক কোনো ব্যাখ্যা জাতিসংঘের প্রতিবেদনে না থাকলেও বলা হয়েছে, ভৌগোলিক কারণে মতাদর্শের বিকাশ হচ্ছে বেশি।

এ ছাড়া উগ্রবাদীদের হাতে তথ্যপ্রযুক্তি চলে যাওয়ায় তারা সহজেই তাদের কর্মকাণ্ড প্রসার করতে পারছে।

মধ্যপ্রাচ্যের ইরাক ও সিরিয়ায় ইসলামিক স্টেটের খিলাফত রাষ্ট্রের ঘোষণায় জঙ্গিরা উদ্বুদ্ধ হচ্ছে। আফগানিস্তানে তালেবানরা দীর্ঘদিন টিকে থাকায় এবং আল-কায়েদার শাখা-প্রশাখার বিস্তার রোধ করতে না পারায় উগ্রবাদীদের সঙ্গে যোগ দিচ্ছে নতুন জিহাদিরা।

এ ছাড়া আফ্রিকার দেশগুলোতেও বেড়ে যাচ্ছে জঙ্গিপ্রবণতা। লিবিয়া, কেনিয়া, নাইজেরিয়া, সোমালিয়া, মালিসহ এই মহাদেশের অনেক দেশেই জঙ্গিবাদ প্রসারিত হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই