মেইন ম্যেনু

লন্ডনে গ্রেফতার মোহাজির নেতা আলতাফ হুসেন, করাচিতে হিংসা

দিলীপ মজুমদার: পাকিস্তানের প্রভাবশালী মোহাজির কউমি মুভমেন্ট (এমকিউএম) নেতা আলতাফ হুসেনের লন্ডনে গ্রেফতার হওয়ার ঘটনায় করাচিতে বিক্ষিপ্ত সংঘর্ষ অবৈধ আর্থিক লেনদেনের অভিযোগে মঙ্গলবার তাঁকে গ্রেফতার করা হয়।স্কটল্যান্ড ইয়ার্ড অবশ্য তাঁকে সরকারিভাবে গ্রেফতার করার কথা জানায়নি। আইনি কারণে ধৃত ব্যক্তির আসল নাম-পরিচয় প্রকাশ না করে তারা এক বিবৃতিতে বলেছে, অফিসাররা আজ সকালে ৬০ বছর বয়সি এক ব্যক্তিকে বেআইনি অর্থ লেনদেনে জড়িত সন্দেহে গ্রেফতার করেছে।উত্তর-পশ্চিম লন্ডনের এক আবাসনে এই গ্রেফতারি হয়েছে।তাঁকে গ্রেফতারির পর থেকে মধ্য লন্ডনের এক থানায় পুলিশি হেফাজতে রেখে জেরা করা হচ্ছে।বিবৃতিতে আরও বলা হয়, উত্তর লন্ডনের এজওয়ার এলাকায় ওই রাজনীতিকের বাসভবনের খোঁজ করছিলেন অফিসাররা।

তবে আলতাফের গ্রেফতার হওয়ার খবর চাপা থাকেনি।পাক মিডিয়া নানা সূত্রকে উদ্ধৃত করে তাঁর ধরা পড়া নিয়ে খবর সম্প্রচার করে।দ্রুত খবর ছড়িয়ে পড়তেই করাচিতে উত্তেজনা দেখা দেয়।১৯৯০ থেকে রাজনৈতিক আশ্রয় চেয়ে লন্ডনেই রয়েছেন আলতাফ।কিন্তু পাকিস্তানের বন্দর শহরে মোহাজির সম্প্রদায়ের মধ্যে তাঁর বিরাট প্রভাব রয়েছে।আটের দশক থেকে সেখানে সবচেয়ে বড় দল এমকিউএম।তাই গ্রেফতারির খবর ছড়াতেই এমকিউএম মিডিয়ার মাধ্যমে শান্তি বজায় রাখার ডাক দিলেও গুলিগোলার শব্দ শোনা যায় শহরের আনাচে কানাচে।বেশ কয়েকটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।শহরে ব্রিটেনের যাবতীয় কূটনৈতিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ হয়ে যায়।ব্রিটিশ হাই কমিশনের জনৈক মুখপাত্র জানিয়েছেন, করাচিতে তাঁদের কনস্যুলেট সাময়িক বন্ধ রাখা হয়েছে।আতঙ্কে বাজারহাট, পেট্রলপাম্প, ব্যাঙ্ক বন্ধ হয়ে যায়।আতঙ্কে ঘরে ফেরার তাড়া দেখা যায় পথচারীদের মধ্যে।পাক রেলও নাশকতার আশঙ্কায় করাচিগামী পরিষেবা বন্ধ রাখে

লন্ডনে এমকিউএম নেতা নাদিম নুসরত দাবি করেছেন বেশ কিছুদিন ধরে অসুস্থ আলতাফকে আজই হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কথা ছিল।কিন্তু তার আগেই পুলিশ তাঁর বাড়িতে হানা দেয়।

পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ বিচলিত আলতাফের গ্রেফতারির ঘটনায় তিনি বলেছেন, অত্যন্ত স্পর্শকাতর ইস্যুটি।সরকার যাবতীয় আইনি দিক খতিয়ে দেখছে।






মন্তব্য চালু নেই