মেইন ম্যেনু

লতিফের বক্তব্যের দায় মন্ত্রীসভাকেই নিতে হবে

লতিফ সিদ্দিকীর বক্তব্যের দায় মন্ত্রীসভাকেই নিতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া।
শনিবার জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে স্বাধীনতা ফোরাম কর্তৃক আয়োজিত এক মানববন্ধনে তিনি একথা বলেন।
ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেন, ‘হজ ও মহানবীকে (সা.) নিয়ে লতিফ সিদ্দিকীর এমন কটূক্তির পরও মাননীয় প্রধানমন্ত্রী তার বক্তব্যের নিন্দা জানায়নি। যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশে ফিরে তিনি বলেছেন তার মন্ত্রীসভার কেউ যদি অশালীন কোন কথা বলে থাকে তার জন্য ব্যক্তিগতভাবে তিনিই দায়ী। আমি বলবো একজন মন্ত্রী ইনডিভিজুয়ালি কোন ব্যক্তি নয়। তিনি কেবিনেট সদস্য। তাই লতিফ সিদ্দিকীর এমন বক্তব্যের দায় কেবিনেটকে নিতে হবে।’
ইসরাইলী গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ বাংলাদেশে সক্রিয় রয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘সরকার তার মন্ত্রীর এমন বক্তব্যের জন্য তাকে কোন সাজা দিচ্ছে না কারণ তিনি চান না ইজরাইলী শক্তি বা জিউস শক্তি মনক্ষুন্ন হোক। আমাদের এখানে মোসাদ গ্রুপ সক্রিয় রয়েছে।’
সরকারের প্রতি প্রশ্ন রেখে তিনি বলেন, ‘ইন্টারপোলের মাধ্যমে তো অনেক অপরাধীকেই দেশে ফিরিয়ে এনে সাজা দেয়া হয় তাহলে লতিফ সিদ্দিকীকে ফিরিয়ে আনা হচ্ছে না কেন? তিনি দেশের ৯৯ শতাংশ মানুষের ধর্মীয় মূল্যবোধে আঘাত হেনেছে। শুধু মন্ত্রীত্ব বা দল থেকে তাকে বহিস্কার করলেই হবে না। তাকে আইনের আওতায় আনতে হবে।’
স্বাধীনতা ফোরামের সভাপতি আবু নাছের মোহাম্মদ রহমতউল্লাহর সভাপতিত্বে এ সময় উপস্থিত ছিলেন বিএনপির প্রচার সম্পাদক জয়নাল আবদিন ফারুক, যুবদলের সভাপতি মোজাম্মেল হোসেন আলাল, ন্যাপের মহাসচিব গোলাম মোস্তফা ভুঁইয়া প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই