মেইন ম্যেনু

রেলমন্ত্রীর পরামর্শ নিচ্ছেন অবিবাহিত বৃদ্ধরা!

গত মাসে সারা দেশে সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা ছিল রেলমন্ত্রী মুজিবুল হকের বিয়ে। ষাটোর্ধ বয়সী মন্ত্রীর তরুণীকে বিয়ে করা নিয়ে কম হাস্যরস হয়নি। মন্ত্রী নিজেও বিষয়টি উপভোগ করেছেন। এই বয়সে তরুণীকে বিয়ে করার দেখে নাকি পরিচিত অবিবাহিত বয়স্করাও সাহস পাচ্ছেন বলে জানালেন মন্ত্রী স্বয়ং। অনেকে নাকি তাকে ফোন করে পরামর্শও চাচ্ছেন।

শনিবার বিকেলে রাজধানীর ইস্টিটিউশন অব ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স (আইডিইবি) ভবনের মুক্তিযুদ্ধ স্মৃতি মিলনায়তনে একটি অনুষ্ঠানে রসিক রেলমন্ত্রী এমন কথাই জানালেন।

তিনি বলেন, ‘৬০ বছরের পরে আমার বিয়ে করা দেখে অনেক বুড়ার বিয়ে করার খায়েস জন্মেছে। তারা অনেকে আমাকে ফোন করে জানিয়েছে, চিন্তা করেছিলাম আর বিয়ে করবো না। কিন্তু তুমি যদি ৬৫ বছর বয়সে বিয়ে করতে পারো তো আমরা কেন পারবো না?’

বেশি বয়সে বিয়ে করার ব্যাপারে মন্ত্রী আত্মপক্ষ সমর্থন করে বলেন, ‘আমি বিয়ে দেরিতে করেছি এটা ঠিক। তবে আমি একজন মোসলমান। দেরিতে করলেও আমাদের ধর্মমতে এটা জায়েজ আছে। আমার স্ত্রী এবং আমি জেনে বুঝে কবুল বলেছি। সামাজিক বিধি মোতাবেক আমরা বিয়ে করেছি।’

উল্লেখ্য, কুমিল্লা সমিতির নতুন কমিটির অভিষেক অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে এ কথা বলেন কুমিল্লার সন্তান রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক। অনুষ্ঠানে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীকে কমনোয়েলথ পার্লামেন্টারি অ্যাসোসিয়েশনের (সিপিএ) সভাপতি নির্বাচিত হওয়ায় সমিতির পক্ষ থেকে সম্মাননা দেয়া হয়।

সংগঠনের সভাপতি লায়ন বেনজীর আহম্মেদের সভাপতিত্বে আরো উপস্থিত ছিলেন- সাবেক মন্ত্রী এ বি এম গোলাম মোস্তফা, আব্দুল মতিন খসরু, আবুল কাশেম, বার কাউন্সিলের সাবেক সভাপতি অ্যাডভোকেট সৈয়দ রেজাউর রহমান, বৃহত্তর কুমিল্লা সমিতির সাধারণ সম্পাদক শীষ হায়দার চৌধুরী প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই