মেইন ম্যেনু

‘রায় হওয়ার পর সরকার ঘুমায়’

‘কোনো মামলার জাজমেন্ট (রায়) হওয়ার পর সরকার ঘুমায়, আপনারা (রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী) ঘুমান, তদন্ত সংস্থাও ঘুমায়’ বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১।

রোববার প্রসিকিউটরদের উদ্দেশে চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিমের নেতৃত্বে দুই সদস্যের ট্রাইব্যুনাল-১ এ ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এর আগে ইঞ্জিনিয়ার আব্দুল জব্বারের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীদের আইনী যুক্তি উপস্থাপন শেষ করেন প্রসিকিউটর তাপস কান্তি বল। যুক্তি উপস্থাপন শেষে জব্বারের সর্বোচ্চ শাস্তি (মৃত্যুদণ্ড) কামনা করেন তিনি।

এসময় ট্রাইব্যুনাল বলেন, ‘কোনো মামলার রায় হওয়ার পর সরকার ঘুমায়, রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবীরা ঘুমান, তদন্ত সংস্থাও ঘুমায়। জাজমেন্টের পর কখনো কোনো উদ্যোগ নেয়া হয়নি।’

ট্রাইব্যুনাল অভিযোগ করে বলেন, ‘প্রতিটি রায়ের পর বাইরের কমিউনিটির লোকজন বলে যাচ্ছে ‘ট্রাইব্যুনাল বন্ধ করা হোক, রায় স্থগিত করা হোক’, ‘বিচার হয়নি আপিল করা হবে, রিভিউ করা হবে’। এর কোনো বিষয়ে আপনাদের (প্রসিকউটরদের) মাথা ব্যাথা নেই। আপনারা ক্যাপিটাল পানিশমেন্টের (সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড) জন্য স্লোগান দিচ্ছেন। বাইরের লোকজনও ফাঁসি চাচ্ছে, আপনারাও তাই চাচ্ছেন।’

প্রসিকিউটর তাপস কান্তি বলকে প্রশ্ন করে ট্রাইব্যুনাল বলেন, ‘ফাঁসি ছাড়া কোনো জাজমেন্ট চান না? ফাঁসি ছাড়া কি কোনো রায় হয় না? আপনারা কেন বারবার এমন ডিমান্ড করছেন?’

উত্তরে প্রসিকিউটর তাপস কান্তি বল ‘অপরাধীর উপযুক্ত শাস্তি চান’ বলে জানান।

উল্লেখ্য, এর আগেও বহুবার প্র্রসিকিউটরদেরকে বিভিন্ন বিষয়ে সতর্ক করার পাশাপাশি মামলা পরিচালনার ক্ষেত্রে অসংখ্য দিক নির্দেশনা প্রদান করেছেন ট্রাইব্যুনাল।






মন্তব্য চালু নেই