মেইন ম্যেনু

রাজধানীর মিরপুরে বিহারি ক্যাম্পে হামলায় বিচার বিভাগীয় কমিশনের দাবি

সম্প্রতি রাজধানীর মিরপুরে বিহারি ক্যাম্পে হামলার তদন্তে পুলিশী তদন্ত কমিশন নয় বিচার বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করার দাবি জানিয়ে সমাবেশ করেছেন লেখক-শিক্ষক-ছাত্র-শিল্পী-সাংস্কৃতিককর্মী-পেশাজীবি-রাজনৈতিককর্মীরা

মঙ্গলবার বিকালে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়।

তারা সমাবেশে বলেন, ‘পুলিশ ঘটনা জানা সত্ত্বেও হামলা প্রতিকারে কোন ব্যবস্থা নেয়নি। ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের বিচারে বিচার বিভাগীয় কমিশনের মাধ্যমে শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।’

সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন নারী নেত্রী, মানবাধীকার কর্মী খুশী কবির, ব্যারিষ্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়া, পরিবেশ আন্দোলনের আহ্বায়ক আবুল হাসান রুবেল, প্রকৌশলী ম. এনামুল হক, প্রকাশক রবিন আহসান, অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম প্রমুখ।

সমাবেশে মানবাধিকারকর্মী খুশী কবির বলেন, ‘মানুষের মূল্যবোধের ঘাটতির কারণে গুম, হত্যা, ও বিহারী পল্লীতে আগুনের ঘটনা ঘটছে। তবে এ ধরনের ঘটনার কোন বিচার হয় না। বিচার না হওয়ায় দেখা দেয় হতাশা।

ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে সব ধরনের আয়োজন করা হয়েছে বলে দাবি করে ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়া বলেন, ‘বিচার না হওয়র আশঙ্কা থেকে প্রতিবাদ জানাচ্ছি। জড়িতদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে।’

পল্লীতে আগুন লাগিয়ে হত্যার ঘটনায় মদদদাতাদের অবিলম্বে গ্রেপ্তার ও ব্যর্থ প্রশাসনের ব্যক্তিদেও জবাবদিহিতা ও শাস্তির আওতায় আনার দাবি সমাবেশে অন্য বক্তারা বলেন, ‘বিহারীরা বাংলাদেশের নাগরিক। তাদের বৈধ পরিচয়পত্র রয়েছে। নিরাপত্তা দেয়া সরকারের দায়িত্ব। কিন্তু প্রশাসন নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছে।’

বক্তারা আরো বলেন, ‘ব্যক্তিস্বার্থ চরিতার্থ ও বিহারীদের উচ্ছেদ করে জমি দখলে এ হামলা চালানো হয়েছে। বিহারীদের ঘর-বাড়িতে হামলা ও আগুনের ঘটনায় পুলিশ জড়িত থাকার অভিযোগ থাকলেও তাদেরকে দিয়েই আবার তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে।’






মন্তব্য চালু নেই