মেইন ম্যেনু

“রক্ষক যখন ভক্ষক” নিরুপায় ট্রাক চালক

টাঙ্গাইলের মির্জাপুর বাইপাস সংলগ্ন ট্রাফিক পুলিশ বক্স যেন ট্রাক-পিক আপ ভ্যান চালকদের স্বর্বস্ব হারানোর গোপন ফাঁদ। দিনের আলোয় চলে স্বর্বস্ব লুটে নেয়ার পৈশাচিক খেলা। এ যেন দেখার মত কেউ নেই। কারণ “রক্ষক যখন ভক্ষক” হয় তার পরিণতি এমন তো হবেই।

এ ব্যাপারে, প্রতক্ষ্যদর্শীরা জানান; প্রথমে চালক দূর থেকে বাইপাসের স্পীড ব্রেকার দেখে ট্রাক-পিক আপ ভ্যানের গতি নিয়ন্ত্রন করতে গাড়ির গতি কমিয়ে আনেন। ট্রাফিক সার্জেন্টরা আগে থেকেই উত পেতে থাকে। দূরে থেকে সার্জেন্টরা হাত ইশারা করতে থাকে। এ সময় চালক গাড়ি ব্রেক করতে বাধ্য হন। গাড়ি ব্রেক না করলে সার্জেন্ট গাড়ির সামনে গিয়ে দাড়িয়ে যায়। গাড়ি ব্রেক করার সাথে সাথে চালককে গাড়ি থেকে নামিয়ে সার্জেন্ট অযথা গাড়ির কাগজপত্র দেখতে চায়।

কাগজপত্র সঠিক থাকলেও তাদের রেহাই নেই।কাগজে ভূল তথ্য আছে বলে দাবি করে বসে। এ সময় চালকের কাছে মোটা অংকের টাকা দাবি করে। চালক দিতে না চাইলে ‘পাশেই থানা’ বলে হুমকি দেয়া হয়। থানা পুলিশ ডাকা বা মামলার হুমকি শুনতে তাদের বাধ্য করা হয়। টাকা সাথে থাকলে সব লুটে নেয়। আর টাকা না থাকলে দ্রুত থানা থেকে পুলিশ এনে চালকের নামে মামলা দিয়ে গাড়ি থানায় আটক করা হয়।






মন্তব্য চালু নেই