মেইন ম্যেনু

যে হোটেলের কর্মীরা কখনও ছুটি নেয় না!

আচ্ছা ভাবুনতো এমন একটি হোটেলের কথা যেখানে খাবার তৈরি থেকে শুরু করে পরিবেশন, টেবিল পরিস্কার, অর্ডার গ্রহণ সব কিছুই রোবট করছে ! বৈজ্ঞানিক কল্পকাহিনী বা সিনেমায় এমন হোটেলের নজির আছে অনেক। তবে এখন আর কল্পনায় নয়, রোবট পরিচালিত হোটেলের যাত্রা শুরু করেছে বাস্তবেই। চীনের কানশান শহরে রোবট পরিচালিত হোটেলের যাত্রা শুরু হয়েছে। এই হোটেলের ক্রেতাদের স্বাগত জানানোর পাশাপাশি খাবার পরিবেশনসহ রান্নাবান্নার দায়িত্ব পালন করছে যন্ত্রমানবরাই।

রোবট পরিচালিত হোটেলের প্রতিষ্ঠাতা চীনের নাগরিক সং ইউগ্যাং জানিয়েছেন, এ হোটেল চালুর ধারণা প্রথম তার মেয়ের মাথা থেকে আসে। সংয়ের মেয়ে গৃহস্থালির কাজ করতে মোটেও পছন্দ করত না। তাই গৃহস্থালির কাজ করতে পারে এমন রোবট আবিষ্কারের বুদ্ধি দিয়েছিল তার বাবাকে। আর মেয়ের ওই ভাবনাই শেষ পর্যন্ত হোটেলে রোবট ব্যবহারের পরিকল্পনা পর্যন্ত নিয়ে যায় সং ইউগ্যাংকে।

চীনের কানশানে চালু হওয়া এ হোটেলের প্রবেশদ্বারে ক্রেতাদের স্বাগত জানাতে রাখা হয়েছে দুটি রোবট। টেবিলে খাবার পরিবেশনের দায়িত্বে রয়েছে চারটি ছোট মানবাকৃতির রোবট। আর রান্নাঘরে খাবার ভাজা ও পুডিং বানানোর জন্য রয়েছে দুটি রোবট। এছাড়া রান্নার কাজে সার্বক্ষণিক তদারকির জন্য রয়েছে আরো একটি রোবট। হোটেলে নিয়োজিত প্রতিটি রোবট তৈরিতে খরচ পড়েছে ৪০ হাজার ইয়েন বা সাড়ে ৬ হাজার ডলার। এই পরিমান অর্থ হোটেলের কাজে নিয়োজিত একজন মানবকর্মীর বার্ষিক বেতনের সমান।

বর্তমান সময়ে শ্রমিকদের পারিশ্রমিক বেড়ে যাওয়ায় চীনসহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে দৈনন্দিন কাজে রোবটের ব্যবহার বাড়াচ্ছে। শ্রমিকদের পারিশ্রমিক বৃদ্ধির সঙ্গে নিরাপত্তার বিষয়টি বিবেচনা করে শিল্পক্ষেত্রে রোবট ব্যবহারে শীর্ষে থাকা জাপানকে এরই মধ্যে পেছনে ফেলেছে চীন।

ইউগ্যাং জানিয়েছেন, রোবটগুলো দৈনন্দিন ব্যবহৃত ৪০টি বাক্য বুঝতে সক্ষম। আর মজার ব্যাপার হলো এরা কখনো অসুস্থ হবে না কিংবা ছুটি চাইবে না। রোবটগুলো ২ ঘণ্টা চার্জ দিলে এক টানা ৫ ঘণ্টা কাজ করতে সক্ষম।






মন্তব্য চালু নেই