মেইন ম্যেনু

যেসব রেকর্ড হাতছানি দিচ্ছে মেসিকে

‘রেকর্ডব্রেকার’ লিওনেল মেসি।

সাম্প্রতিক বছরগুলোতে অনেক ফুটবল রূপকথার জন্ম দিয়েছেন বার্সেলোনার প্রাণপুরুষ। অনেকে বলবেন ২০১৪ সালে দলীয় অর্জনের পালায় একেবারে রিক্তহস্ত ছিলেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। তবে ব্যক্তিগতভাবে খালি হাত ছিলেন না এমএলটেন। শেষের বিকেলে পা রাখা বছরে দুই স্প্যানিশ কিংবদন্তি তেলমো জারা ও রাউল গঞ্জালেসকে সিংহাসনচ্যুত করেছেন মেসি। হয়েছেন লা লিগা ও উয়েফা চ্যাম্পিয়নস লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতা।

তাতেই থামছেন না মেসি। আসন্ন ২০১৫ সালে অর্থাৎ, নতুন বছরে গৌরবের আরো কিছু রেকর্ড হাতছানি দিচ্ছে মেসিকে। ইউরোপের শীর্ষ কয়েকটি লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতাদের ছাপিয়ে ইউরোপীয় অঙ্গনে সবচেয়ে বেশি গোল করার নজির স্পর্শ করা। লা লিগায় ২৫৭ গোল করে ইতোমধ্যেই ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ, ইতালিয়ান সিরি আ এবং ফরাসি লিগ ওয়ানের সর্বোচ্চ গোলদাতাদের ছাড়িয়ে যাওয়ার হুমকি দিচ্ছেন মেসি। যদিও জার্মান বুন্দেস লিগার শীর্ষ গোলদাতার থেকে এখনো বেশ পিছিয়ে ফুটবলের ক্ষুদে যাদুকর।

১৯৯২ সালে যাত্রা শুরু করা ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের শীর্ষ গোলদাতা অ্যালেন শেরার। ব্লাকবার্ন রোভার্স ও নিউক্যাসলের হয়ে ৪৩৪ ম্যাচে ২৬০ গোল করেছিলেন ইংলিশ ফুটবলার। তাকে ছাড়াতে আর মাত্র তিনটি গোল দরকার মেসির। শেরারের পর মেসির রাডারে কড়া নাড়ছেন সিলভিও পিয়লা। ইতালিয়ান লিগে ২৭৪ গোলের নজির আছে সাবেক আজ্জুরি ফরোয়ার্ডের। যা ইউরোপের কুলীন লিগটির সর্বোচ্চ। এরপর দৃষ্টিসীমার মধ্যে আসবেন ডেলিও অনিস। আর্জেন্টাইন ভদ্রলোক ফরাসি লিগে মোনাকোর হয়ে ২৯৯ গোল করেছিলেন, যা মেসির থেকে ৪২ গোল বেশি।

তবে জার্মানি থেকে বড় চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হচ্ছেন ২০১৪ বিশ্বকাপের গোল্ডেন বল জয়ী ফুটবলার মেসি। কেননা বুন্দেস লিগার সর্বোচ্চ গোলদাতা জার্ড মুলারের ঝুলিতে ৩৬৫ গোল। বায়ার্ন মিউনিখের হয়ে ৪২৭ ম্যাচ খেলে লিগে বার্সা তারকার থেকে ১০৮ গোল বেশি করেছেন জার্মান ফরোয়ার্ড।






মন্তব্য চালু নেই