মেইন ম্যেনু

যশোর সংবাদ

যশোরে পুলিশের ক্রসফায়ারের তদন্ত ফেঁসে যাচ্ছে ওসি ॥ এক দারোগা

যশোরে ছিনতাইকারির নাটক সাজিয়ে নিরীহ দুইযুবককে গুলি করার ঘটনার তদন্ত করেছে আইন ও শালিস কেন্দ্রের কর্মকর্তারা। ১৩ নভেম্বর বৃহস্পতিবার রাত তিনটা ৪৫ মিনিটের সময় কোতয়ালি থানার দারোগা এস আই সোয়েবের নেতৃত্বে ১০/১২ জনের পুলিশের একটি টিম শহরতলীর বাহাদুরপুর পশ্চিমপাড়ার বাড়ি থেকে মিজানকে ধরে শহরের কালেকটরেটের পশ্চিমপাশে নার্সারি পট্টিতে নিয়ে যেয়ে পায়ে গুলি করে। শুধু মিজান নয় ওই রাতে পুলিশ শহরের বারান্দিপাড়া থেকে হারুন মিস্ত্রির ছেলে হাফিজুরকেও ধরে একই স্থানে নিয়ে যেয়ে ছিনতাইকারি বলে পায়ে গুলি করা হয়। ঘটনাটি পত্রপত্রিকা ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ায় প্রকাশিত হওয়ার পর ১৭ নভেম্বর রাতে ঢাকা থেকে আইন ও শালিস কেন্দ্রের দুই কর্মকর্তা যশোর আসেন তদন্তের জন্য। এদের একজন আইন ও শালিস কেন্দ্রের সিনিয়র ইনভেস্টিকেটর ও ট্রেনিং চিফ অসিত দাস। অপরজন ইনভেস্টিকটর মাহাবুব আলম। পরের দিন ১৮ নভেম্বর এদুই কর্মকর্তা পুলিশের গুলিতে আহত মিজানুর ও হাফিজুরের বাড়িতে যান। তারা মিজানুরের বাবা মাইক্রো চালক ইকবাল হোসেন বাবু ও হাফিজুরের বাবা হারুন মিস্ত্রি এবং এলাকার গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথে কথা বলেন। কিন্তু তারা মিজানুর ও হাফিজুরের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কার্যকলাপের কোন তথ্য পাননি।
আইন ও শালিস কেন্দ্রের সিনিয়র ইনভেস্টিকেটর ও ট্রেনিং চিফ অসিত দাসের কাছে তদন্তের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, এলাকাবাসী ও জনপ্রতিনিধি স্ব-স্ব এলাকার কেউই মিজান ও হাফিজের বিপক্ষে কোন কথা বলেনি। এলাকাবাসী ও জনপ্রতিনিধিদের সাথে কথা বলার পর দুই কর্মকর্তা কোতয়ালি মডেল থানার দারোগা যার বিরুদ্ধে নিরীহ দুই যুবককে গুলি করার অভিযোগ উঠেছে সেই আলোচিত সোয়েবের সাথে কথা বলতে গেলে তিনি (দারোগা সোয়েব) আইন ও শালিস কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেননি। দারোগা সোয়েব তাদেরকে বলেন আমার কথা বলা নিষেধ আছে। ১৮ নভেম্বর আইন ও শালিস কেন্দ্রের দুই কর্মকর্তা কোতয়ালি মডেল থানায় যেয়েও ওসি ইনামুল হকের দেখা পাননি। থানা সূত্রে জানা যায়, আইন ও শালিস কেন্দ্রের দুই কর্মকর্তার থানায় যাওয়ার কথা শুনে আগেই থানা থেকে ওসি ইনামুল হক বেরিয়ে যান।

অন্যান্য সংবাদ

যশোরে সড়ক দুর্ঘটনায়দুইজন নিহত

যশোরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় দু’জন নিহত হয়েছেন। নিহতরা হচ্ছে যশোর শহরের ধর্মতলা এলাকার রইস উদ্দিন(৫০) ও শহরের শংকরপুর এলাকার আবদুল মজিদ(৫৬)।
শনিবার সকালে বাইসাইকেলে রাস্তা পার হওয়ার সময় একটি মটরসাইকেল তাকে ধাক্কা দেয়। এতে সে গুরুতর আহত হন। এ সময় তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যু হয়েছে। অপরদিকে আব্দুল মজিদ শংকরপুর এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় আহত হয়। এ সময় স্থানীয় লোকজন তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করে। সে ও চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায়। এ ব্যাপারে যশোর কোতয়ালি থানায় প্রথক মামরা হয়েছে।

যশোরে সাইফুল্লাহ হত্যার ১১ দিনপর থানায় মামলা

যশোরে মুসলিম একাডেমী স্কুল সংলগ্ন বাঁশপট্টি এলাকায় কলেজ ছাত্র সাইফুল্লাহ (১৯) খুন হয়। এ হত্যাকান্ডের ১১ দিনপর তার বাবা সিদ্দিকুর রহমান বাদি হয়ে যশোর কোতয়ালি থানায় মামলা করেছে।
সাইফুল্লাহ উপশহর ডিগ্রী কলেজের সমাজ বিজ্ঞান বিভাগের ১ম বর্ষে ছাত্র। সে খড়কী এলাকার রিফাত মঞ্জিল নামের এক ছাত্রাবাসে থাকে লেখাপড়া করতো। ১০ নভেম্বর সন্ধ্যায় অজ্ঞাত দূবৃর্ত্তদের খুন হয়। এ হত্যা কান্ডের ১১ দিন পর থানায় মামলা হয়েছে।

যশোরে ক্ষুরসহ দুইজন আটক

যশোর কোতয়ালি থানা পুলিশ শহরে পৃথক অভিযান চালায়। এ সময় দুইজনকে আটক করেছে। তাদের কাছ থেকে ইয়াবা ও ক্ষুর উদ্ধার করেছে। আটককৃতরা হচ্ছে,যশোর শহরের রায়পাড়ার মৃত রঞ্জিত দাসের পুত্র বিকাশ দাস ও বড় বাজার মাছ বাজারের নিহাল বিশ্বাসের পুত্র জীবন বিশ্বাস।
শুক্রবার গভীর রাতে কোতয়ালি থানার এসআই জহুরুল ইসলাম শহরের মাড়–ুয়াড়ী মন্দিরের সামনে অভিযান চালায়। এ সময় ২০ পিস ইয়াবাসহ জীবন বিশ্বাসকে আটক করে। অপর দিকে শনিবার সকালে কোতয়ালি থানার এসআই শেহাবুর রহমান ক্ষুরসহ সন্ত্রাসী বিকাশ দাসকে আটক করে। এ ঘটনায় যশোর কোতয়ালি থানায় মামলা হয়েছে।

যশোরে এক স্কুল ছাত্রী অপহরণ॥থানায় মামলা

যশোরে এক স্কুল পড়–য়া ছাত্রী সাদিয়া আফরিন ঋতু (১৪) কে অপহরণ করেছে সন্ত্রাসীরা । এ ঘটনায় যশোর কোতয়ালি থানায় মামলা হয়েছে। ৩৬ ঘন্টা পার হওয়ার পরও অপহৃতাকে উদ্ধার করতে পারেনি পুলিশ।
পুলিশ জানায় যশোর সদরের সুজল পুর গ্রামের ইকরামুল কবিরের স্কুল পড়–য়া মেয়ে সাদিয়া আফরিন ঋতু। সে মুক্তেশ্বরী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৮ম শ্রেনীর ছাত্রী। স্কুলে আসা যাওয়ার পথে খোলা ডাঙ্গা কদমতলা মোড়ের মিজানুর রহমান খোকনের পুত্র ফরহাদ হোসেন তাকে উত্যাক্ত করে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। গত বৃহস্পতিবার বিকেলে ঋতু বাড়ি হতে বের হয়। এ সময় ফরহাদ হোসেনসহ তার ভাই মুরাদ হোসেন,মৃত সলিম মল্লাহর পুত্র মিজানুর রহমান,আল মামুন তাকে অপহরণ করে।

যশোরে এক চিকিৎসককে মারপিট ॥ টাকা লুট

যশোর শহরের পুরাতন পৌর সভার ক্লিনিকের সামনে সন্ত্রাসীরা ডাক্তার এইচ এস এম আব্দুর রবকে জীবন নাশের হুমকি অব্যাহত রেখেছে সন্ত্রাসীরা। এ ঘটনায় ডাক্তর আব্দুর রব বাদি হয়ে যশোর কোতয়ালি থানায় সাধারণ ডাইরী করে। সে যশোর শহরের শংকরপুর এলাকার মৃত আব্দুস সামাদ সরদারের পুত্র। এ খবর জানাজানি হয়ে পড়লে সন্ত্রাসীরা তাকে এলোপাতাড়ীভাবে মারপিট করে নগদ ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়।
মামলায় উল্লেখ করেছেন শনিবার সকালে ডাক্তার এইচ এস এম আব্দুর রব পুরাতন পৌর সভার ক্লিনিকের সামনে পৌছালে ওই এলাকার মৃত আব্দুল লতিফের পুত্র বদিউজ্জামান ধ্বনি ও মনিরুজ্জামান মনি তার মাথায় পিস্তল ঠেকিয়ে হত্যার হুমকী দেয়ার এক পর্যায় মনিরুজ্জামান মনি লোহার রড দিয়ে এলোপাতাড়ী ভাবে মারপিট করে পকেটে থাকা নগদ ২০ হাজার টাকা ছিনিয়ে নেয়। এ সময় তার পরিবারের লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

যশোর এসএম সুলতান কলেজের শিক্ষক কর্মচারী মানবেতন জীবনযাপন করছে

যশোর এসএম সুলতান ফাইন আর্ট কলেজ উতোমধ্যে একযুগ পার করেছে। তবুও এমপিওভুক্ত হয়নি। সুদৃষ্টি পড়েনি সরকারে। এতে ওই কলেজের শিক্ষক-কর্মচারীরা মানবেতন জীবনযাপন করছে । কলেজের প্রতি সুদৃষ্টি দেওয়ার জন্যে বর্তমান সরকারের হস্তক্ষেপ কামনা করছে সচেতন মহল।
যশোর উপশহরে লেক আর সবুজ বেষ্টনীর মাঝে এক মনোরম পরিবেশে গত ২০০২ সালে প্রতিষ্ঠা হয় এসএম সুলতান ফাইন আর্ট কলেজ। শিক্ষানুরাগী আর শিল্পকলার প্রতি আকৃষ্ট শহরের সৃষ্টিশীল কিছু মানুষের হাতের ছোয়ায় গড়ে ওঠে এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।
কলেজের অধ্যক্ষ শামীম ইকবাল জানিয়েছেন, প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এ কলেজে কর্মরত শিক্ষক-কর্মচারীরা আন্তরিকতার সঙ্গে তাদের দায়িত্ব পালন করছেন। যে কারণে কলেজটি ফলাফলেও সাফল্য দেখায়। ইতোমধ্যে কলেজটি জাতীয় বিশ্বদ্যিালয়ে অধিভুক্ত হয়েছে। ৫ বছর মেয়াদি স্নাতক কোর্স সম্পন্ন করে ৪টি ব্যাচ বেরিয়েও গেছে। প্রতিবছরই জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে বিভিন্ন পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে বোর্ডের প্রথম স্থানসহ শীর্ষ ১০টি স্থান দখল করার নজির রয়েছে বহুবার। তাদের অনেকে এখন বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে উপার্জন করছে। কিন্তু দুঃখের বিষয় আমাদের শিক্ষক-কর্মচারীরা থাকছেন অর্থকষ্টে। তিনি জানান, বর্তমানে এ কলেজে ১০ জন শিক্ষক, ৫ জন কর্মচারী আর শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছেন। শিক্ষার্থীদের সামান্য বেতনের টাকা দিয়ে কলেজের নানা খরচ চলে। এ কারনে শিক্ষক-কর্মচারীরা বিনা সম্মানিতেই পাঠদান করছেন।

যশোরে কিশোরীর লাশ উদ্ধার

যশোর কোতয়ালি থানার পুলিশ ঝর্না খাতুন (১২) এক কিশোরীর লাশ উদ্ধার করেছে। সে যশোর সদরের বালিয়াডাঙ্গার মান্দিয়া এলাকার জুলহাসের মেয়ে।
শনিবার সকালে কোতয়ালি থানার পুলিশ ঝর্না খাতুনের মরদেহ উদ্ধার করে। পরে তার লাশ যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করে। পুলিশ জানায় এটা হত্যা না আত্মহত্যা তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই