মেইন ম্যেনু

মৃত ব্যক্তিকে দাওয়াত করলেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

আলোচনা-সমালোচনা পিছু ছাড়ছে না সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলীর। একেক সময় একেক ঘটনায় গণমাধ্যমের শিরোনাম হয়ে উঠেন তিনি।

এর আগে সাংবাদিকদের নিয়ে কটাক্ষ করে বক্তব্য দেয়ায় আলোচনা-সমালোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে আসেন। বিভিন্ন সেমিনার সমাবেশে ঘুমিয়ে পড়ার কারণে হাস্যেরসের খোরাক হন তিনি। অনুষ্ঠানে গান গেয়ে গণমাধ্যমে খবরেরও শিরোনাম হন। মেয়ের বিয়ের অনুষ্ঠান নিয়েও সাংবাকিদের এড়িয়ে যেতে পারেননি তিনি।
এবার আলোচনায় এলেন মৃত ব্যক্তিকে স্মরণসভায় আমন্ত্রণ করে।

রাজধানীর কারওয়ানবাজারে গাড়ির ধাক্কায় নিহত প্রবীণ সাংবাদিক ও কলামিস্ট জগলুল আহমেদ চৌধুরী স্মরণে এক শোকসভার আয়োজন করেছেন সমাজকল্যাণ মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী।

আর সেই শোকসভায় অংশ নিতে সদ্য প্রয়াত জগলুল আহমেদ চৌধুরীর নামেই আমন্ত্রণপত্র পাঠিয়েছেন মন্ত্রী সৈয়দ মহসিন আলী।

সোমবার জগলুল আহমেদ চৌধুরীর কর্মস্থল দ্য ফিনান্সিয়াল এক্সপ্রেস কার্যালয়ে কার্ডটি পৌঁছে দেয়া হয়। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি ফিন্যান্সিয়াল এক্সপ্রেসের উপদেষ্টা সম্পাদক ছিলেন।

পত্রিকাটির এক সাংবাদিক (নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক) জগলুল আহমেদ চৌধুরীর নামে কার্ড পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ঢাকাস্থ একটি অনলাইন গণমাধ্যমে।

বিষয়টি নিয়ে সাংবাদিক মহলে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে।

কার্ড সূত্রে জানা গেছে, বুধবার সকাল ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাব অডিটোরিয়ামে বিশিষ্ট সাংবাদিক, কলামিস্ট ও আন্তর্জাতিক বিশ্লেষক জগলুল আহমেদ চৌধুরী স্মরণে শোকসভা অনুষ্ঠিত হবে। অনুষ্ঠানে তার স্মরণে আলোচনা, মিলাদ মাহফিল ও দোয়া অনুষ্ঠিত হবে। এ শোকসভার আয়োজক মন্ত্রী মহসিন আলী।

সাংবাদিক জগলুল আহমেদ চৌধুরী গণপরিবহন ব্যবহার করতেন বেশি। গত ২৯ নভেম্বর একটি বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের আলোচনা অনুষ্ঠানে যোগ দিতে রাত আটটার কিছু পরে বাসে করে কারওয়ানবাজারে পৌঁছেন তিনি।

সেখানে বাস থেকে নামতে গিয়ে অন্য একটি বাসের ধাক্কায় নিহত হন তিনি। কর্মজীবনে জগলুল আহমেদ চৌধুরী বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) প্রধান সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন।






মন্তব্য চালু নেই