মেইন ম্যেনু

মাত্র ৯০ ডলারে খুন করেন ন্যামকে

উত্তর কোরিয়ার নেতার সৎভাই কিম জং ন্যাম হত্যার অভিযোগে ইন্দোনেশিয়ার গ্রেফতারকৃত এক নারী স্বীকারোক্তি দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, একটি প্রাঙ্ক ভিডিও বানানোর জন্য মাত্র ৯০ ডলার (৪০০ রিঙ্গিত) দেয়া হয়েছিল তাকে।

শনিবার মালয়েশিয়ার রাজধানী কুয়ালালামপুরে সিতি আইশাহ নামের ওই নারীর সঙ্গে ইন্দোনেশীয় দূতাবাসের কর্মকর্তারা সাক্ষাৎ করেছেন।

সিতি আইশাহ বলেছেন, রিয়ালিটি শো’র জোকস তৈরির জন্য তাকে শিশুদের ব্যবহারের তেল কিম জং ন্যামের মুখে স্প্রে করার শর্তে ওই অর্থ দেয়া হয়।

মরদেহ পরীক্ষার পর চিকিৎসকরা বলেছেন, প্রাণঘাতী রাসায়নিক নার্ভ অ্যাজেন্ট ভিএক্স প্রয়োগে খুন হয়েছেন ন্যাম। জাতিসংঘ বলছে, বিষাক্ত এই অস্ত্র সবচেয়ে প্রাণঘাতী। ১৯৯৩ সালে এই রাসায়নিক অস্ত্র নিষিদ্ধ করা হয়।

গত সপ্তাহে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে দুই নারীর হামলায় প্রাণ হারান উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সৎভাই কিম জং ন্যাম। ন্যাম হত্যার পেছনে উত্তর কোরিয়া জড়িত বলে সন্দেহ করা হলেও পিয়ং ইয়ং তা কঠোরভাবে প্রত্যাখ্যান করে আসছে।

হত্যায় জড়িত সন্দেহে এখন পর্যন্ত তিনজনকে গ্রেফতার করেছে মালয়েশিয়া। এছাড়া উত্তর কোরিয়ার আরো চার পুরুষসহ সাতজনকে খুঁজছে পুলিশ।

সিতি আইশাহ’র সঙ্গে ৩০ মিনিটের সাক্ষাতের পর ইন্দোনেশিয়ার ডেপুটি অ্যাম্বাসেডর আন্দ্রিয়ানো এরউইন বলেন, সে শুধুমাত্র বলেছে যে, ওই কাজ করার জন্য তাকে কেউ বলেছিল। তাকে (সিতি) বলা হয়েছিল, জাপানি অথবা কোরিয়ান কোনো নাগরিকের মুখোমুখি হবে সে।

‘তার দেয়া তথ্য অনুযায়ী, এ কাজ করার জন্য ওই ব্যক্তি তাকে ৪০০ রিঙ্গিত দিয়েছিলেন… সে শুধুমাত্র বলেছে, তাকে এক ধরনের তেল দেয়া হয়েছিল; শিশুদের তেলের মতো।’ তবে রাসায়নিক এই বিষের কারণে ওই নারীর কোনো ক্ষতি হয়নি বলে দূতাবাস কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

সূত্র : বিবিসি।






মন্তব্য চালু নেই