মেইন ম্যেনু

ভিডিওতে দেখুন ভূমিকম্পের সময় কিভাবে নেপালের ভবন মূহুর্ত্তে মিশে গেল মাটির সঙ্গে ( ভিডিও )

গতকাল ২৫ এপ্রিল ২০১৫ তে ঘতে যাওয়া ভূমিকম্পের উৎপত্তিস্থল ছিল কাঠমান্ডু থেকে ৭০ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে নির্জন পাহাড়ি এলাকা। সেখানেই মাটির ১১ কিলোমিটার গভীরে শনিবারের ভূমিকম্পের উৎসস্থল। কিন্তু এই ভূমিকম্প কাঁপিয়ে দিয়ে যায় নেপাল, বাংলাদেশ, ভাতর ও চীনের একাংশ। নেপালে মৃত্যুর সংখ্যা হাজার হাজার হবে বলে ধারনা করা হচ্ছে।

ভূগর্ভস্থ যে প্লেটগুলির ওপরে অবস্থান করছে মহাদেশ ও মহাসাগরগুলি, তার মধ্যেই দুটি প্লেটের রেষারেষির ফল এ দিনের ভূমিকম্প।

শনিবার দুপুরে ভারতীয় প্লেটটি পিছলে ঢুকে যায় ইউরেশীয় প্লেটের নিচে। সেই প্রক্রিয়ায় যে বিপুল পরিমাণ শক্তি নির্গত হয়, তার জেরেই কেঁপে ওঠে কাঠমান্ডু থেকে দিল্লি। কম্পন কোথাও স্থায়ী হয় এক মিনিট, কোথাও দেড় মিনিট, কোথাও বা দুই মিনিট। ধ্বংসলীলার পক্ষে এটুকু সময়ই ছিল যথেষ্ট। কারণ দুই প্লেটের এই স্থান পরিবর্তনে যে পরিমাণ শক্তি নির্গত হয়েছে, তার কাছে পরমাণু বোমা নস্যি।

এই ভূমিকম্পের সময় অধিকাংশ মানুষ নিজের জীবন বাঁচাতে ছিল ব্যস্ত। এর মধ্যেই দুই একজন তাদের মোবাইলে ধারন করেছেন বিরলতম সেসব দৃশ্য। দূর্লভ এক ভিডিওতে দেখুন ভূমিকম্পের সময় কিভাবে নেপালের ভবন মূহুর্ত্তে মিশে গেল মাটির সঙ্গে






মন্তব্য চালু নেই