মেইন ম্যেনু

ভারত – বাংলাদেশ দুই দেশ একই উদ্বেগের শরিক

ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সৈয়দ আকবরউদ্দিন বলেছেন, বাংলাদেশ ও ভারত উভয় দেশ একই ধরনের উদ্বেগের শরিক। ফলে দুই দেশের দুই নেতার মধ্যে প্রথম বৈঠকে এসব বিষয় নিয়েই আলোচনা হবে।

আগামী ২৭ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর মধ্যে প্রথম বৈঠকের আলোচনার বিষয়বস্তু সম্পর্কে সৈয়দ আকবরউদ্দিন এসব কথা বলেন।

মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় নয়াদিল্লিতে ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে মুখপাত্র বলেন, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে মোদীর শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা আসতে পারেননি। দুই নেতার মধ্যে এটিই প্রথম বৈঠক। তাই এই বৈঠকটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ।

নিউইয়র্কে হাসিনা-মোদীর মধ্যে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে।

মুখপাত্র জানান, চারদিনের সফরে আগামী ২৬ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্ক যাচ্ছেন মোদী। এ সফরে তিনি ৩৫টি কর্মসূচিতে অংশ নেবেন।

এ সময়ে ভারতের প্রধানমন্ত্রী বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ছাড়াও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামা, শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি রাজাপাক্ষে, নেপালের প্রধানমন্ত্রী সুশীল কুমার কৈরালা ও জাতিসংঘের মহাসচিব বান কি মুনের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপদির সঙ্গে বৈঠকে দ্বিপাক্ষিক অর্থনৈতিক-বাণিজ্যিক সম্পর্ক উন্নয়নের বিষয় ছাড়াও বাংলাদেশ, আফগানিস্তানের মতো দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলো নিয়েও আলোচনা হতে পারে।

মোদী মার্কিন রাষ্ট্রপতি বারাক ওবামার ব্যক্তিগত আমন্ত্রণে ডিনারে অংশ নেবেন। তবে এসব বৈঠকে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ অংশ নেবেন কি-না তা পরে জানানো হবে বলে জানান মুখপাত্র আকবরউদ্দিন।

সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রপতি বিল ক্লিনটন ও সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটনসহ তিনটি রাজ্যের গভর্নরের সঙ্গেও বৈঠকের কথা রয়েছে ভারতের প্রধানমন্ত্রীর।

এছাড়াও মোদী কোকাকোলা, গুগল-এর মতো শীর্ষ ১১টি প্রতিষ্ঠানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তাদের (সিইও) সঙ্গে নিউইয়র্কে বৈঠক করবেন বলে জানান আকবরউদ্দিন।

এদিকে মোদী তার সফরকালে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে বসবাসরত শিখ ও ইহুদি সম্প্রদায়ের নেতাদের সঙ্গেও বৈঠক করবেন।

তবে ইহুদিদের সঙ্গে বৈঠকের ব্যাপারে জানতে চাইলে মুখপাত্র আকবরউদ্দিন জানান, এই ধরনের বৈঠক নরসিমা রাওয়ের সময় এবং তারপরেও হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় মোদীও বৈঠক করবেন।

নিউইয়র্ক সফরের সময় নরেন্দ্র মোদী ধর্মীয় কারণে উপবাসব্রত পালন করবেন। তাই এই সময়ে তার খাবারের তালিকা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে জানিয়ে দেওয়া হবে বলেও জানান ভারতের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এই মুখপাত্র ।






মন্তব্য চালু নেই