মেইন ম্যেনু

বৃহস্পতিবারের রাশিফল

মেষ (মার্চ ২১-এপ্রিল১৯): আজ মানসিক ও শারীরিক পরিশ্রম করবেন। সারাদিন অর্থনৈতিক ও সাধারণ কাজে ব্যস্ততা যাবে। সমাজের উচ্চপদস্থ ও সম্মানীয় ব্যক্তিদের সংস্পর্শে আসবেন সুতরাং মানসিক ও শারীরিকভাবে প্রস্তুত থাকুন। সোনা রূপা, লোহা, বস্ত্র, কাগজ অথবা দুধ সংক্রান্ত ব্যবসার সঙ্গে যুক্ত থাকলে লাভবান হবেন। শেয়ার ব্যবসায় যুক্ত থাকলে দুপুরের আগে বেচে ফেলুন।

বৃষ (এপ্রিল২০- মে ২০): কারও জন্যে অপেক্ষা করার চেয়ে, নিজেকে সময় দেয়া উত্তম। তার চেয়ে উত্তম কারও ভেতর নিজের জন্যে অপেক্ষা তৈরি করা। এ ব্যাপারটা যে যত সূক্ষ্ণ ও নিখুঁতভাবে করতে সক্ষম হবে, তার জন্যে পৃথিবীর উপহারের পরিমাণ হবে তত বেশি হবে। বাতাসের ভাঁজে যত রকমের সুর আছে প্রতিদিন তার সবক’টিকে ধরবার প্রয়োজন নেই। এক দিনে তাদের তিনটিকে ধরুন। বেঁচে থাকার অনিঃশেষ স্পৃহা তৈরি হবে।

মিথুন (মে২১- জুন২০): কোনো কিছু সৃষ্টি করার সঙ্গে কোনো কিছু ত্যাগ করার খুব ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক রয়েছে। খুব বড় কিছু সৃষ্টি করেছেন এমন মানুষেরা বলে গেছেন, তাদের জীবনে ত্যাগের পরিমাণ অপরিমেয় ছিল। আর তা যে অপরিসীম বেদনা তাদের ভেতর জমা করে দিয়ে গেছে, তা থেকেই বেরিয়ে এসেছে সৃষ্টি। সেই সৃষ্টি সাধারণ মানুষের বেদনা দূর করেছে, তাদের এগিয়ে দিয়েছে।

কর্কট (জুন২১- জুলাই২২): জীবিত আর মৃতের পার্থক্য বিনষ্ট হয়ে যাওয়া দেহ আর তরতাজা শরীরে নয়। পার্থক্য সূচিত হয় আনন্দে। যে দেহে আনন্দ নেই, তাতে জীবন নেই, সে দেহ মৃত। নিজেকে কেমন দেখতে চান, তা জানতে অন্য কারও শরণাপন্ন হওয়ার প্রয়োজন নেই। শুধু একবার আয়নার সামনে দাঁড়ান। নিজের মুখের জায়গায় একটা বৃক্ষকে বসিয়ে দিন। বৃক্ষের যে শাখাটি, যে পাতাটি ঝরে যাওয়া প্রয়োজন বলে মনে হবে, সেটিকে ঝরিয়ে ফেলুন।

সিংহ (জুলাই২৩- আগস্ট২২): আপনার প্রতি অনিঃশেষ পথ ধরে হেঁটে যাওয়ার পরামর্শ থাকবে। হাঁটতে হাঁটতে মনের ভেতর থেকে বেরিয়ে আসবে সেই বিষয়টি, যা আপনার মনকে সারাক্ষণ দখল করে রেখেছে, টেনে ধরে রেখেছে, এগুতে দিচ্ছে না। বেরিয়ে আসার পর খুব শান্ত মন নিয়ে সূর্যের দিকে পেছন ফিরে সেটি নিয়ে ভাবতে হবে। মাটিতে লম্বা হয়ে শুয়ে থাকা নিজের ছায়া, সাহায্য করবে আপনাকে।

কন্যা (আগস্ট২৩- সেপ্টেম্বর২২): আমাদের চোখের সামনে যে চিত্রগুলো দেখতে পাই, তার অধিকাংশ থেকেই ভুল তথ্য তুলে নিয়ে নিশ্চিন্ত মনে বাড়ি ফিরে যাই। তাই যখন নিজের জীবনের কোনো বড় সিদ্ধান্ত নেয়ার সময় আসে, তখন সিদ্ধান্তটি নিতে ভুল হয়ে যায়, কারণ আমাদের ডেটাবেজে ভুল তথ্য জমা করে রাখা ছিল।

তুলা (সেপ্টেম্বর২৩– অক্টোবর২২): মানুষ যখন চোখের ভাষা হারিয়ে ফেলে, তখন বুঝে নিতে হয়, আর কিছুদিনের মধ্যেই তার মৃত্যু হবে। এমন কোনো মানুষকে যদি চোখের সামনে দেখতে পান, তবে তার চোখের ভাষা ফিরিয়ে দিতে চেষ্টা করুন। সেটা তাকে তীব্র বেদনা দেয়ার মধ্য দিয়েও হতে পারে।

বৃশ্চিক (অক্টোবর২৩– নভেম্বর২১): সৌভাগ্যক্রমে বরফ থেকে প্রতিফলিত রঙধনু যদি চোখের তারায় লেপ্টে যায়, তবে মানুষের সঙ্গে মানুষের সম্পর্ক আপনার কাছে নতুন মাত্রা পাবে। আর রাতের মধ্যে খুঁজে পাবেন জটিলতম মনোরোগের চিকিৎসা। যে রোগ আপনার ক্ষতি করে যাচ্ছে কোনো অজানা অনুজীবের চেয়েও বেশি।

ধনু (নভেম্বর২২- ডিসেম্বর২১): আমরা মূলত বিশেষ কিছু রঙের বাহিরে কখনও দেখতে পাই না। কিন্তু পৃথিবীতে রঙের সংখ্যা আরও অনেক বেশি যার কিছু কিছু মাঝেমাঝে আমাদের চোখে ধরা পড়ে, বিশেষত কাউকে ভালোবাসার সময়। আজ তেমনই কোনো রঙ, নতুন রঙ, চোখের পর্দায় ধরা দিতে পারে।

মকর (ডিসেম্বর২২- জানুয়ারি১৯): কেউ শুনিয়ে দিতে পারে এমন কোন সুর, যেটা আজ সারাদিনের দেখার চোখ বদলে দিতে পারে আপনার। এ ধরনের সুর মূলত স্বপ্নে সঙ্গে যোগসূত্র ঘটিয়ে দেয়। যে কারণ আজ আপনার লালিত কোনো স্বপ্নকে খুব কাছ থেকে দেখতে পাবেন। এটা লক্ষ্যকে আরও দৃঢ় করতে শুরু করবে।

কুম্ভ (জানুয়ারি২০- ফেব্রুয়ারি১৮): কোনো বস্তুর প্রতি ভালোবাসা আপনাকে বিষণ্ণ করবে এবং আপনি অবাক হতে পারেন, একটা জড়বস্তু কী করে আপনার এতোটা দখল করে ফেলতে পারলো। জীবনের ভাঁজে জমে থাকা কষ্টগুলো থেকে চমৎকার সুবাস বেরোবে। যাকে ভালোবেসেছিলেন তাকে সেই অমর উক্তিটির মতো মুক্তি দিন। ‘তুমি যদি কাউকে ভালোবাসো, তবে তাকে মুক্ত করে দাও…

মীন (ফেব্রুয়ারি১৯- মার্চ২০): আত্মার এক ধরনের সুর আছে। একাকী গভীর রাতে, পাশের ঘরে নিঃসঙ্গ কাউকে শ্বাস ফেলতে শুনলে, অথবা কবরস্থানের পাশে কোনো কুয়াশাভোরে কোনো শিশুর হাত ধরে দাঁড়ানো সম্ভব হলে, কদাচ সে সুর ধরতে পারা যায়। যদি গাঢ় একাকীত্ব সময়ের মতো গ্রাস করে আপনাকে, তবে নিজেকে সে একাকীত্বের তলপেটে চলে যেতে দিন। একাকীত্বের সবচেয়ে বড় উপহার নিজেকে চেনা। যে চেনাটা আপনার জন্যে ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়েছে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই