মেইন ম্যেনু

জুয়া আসর থেকে পুলিশের মাসোহারা আদায়

বিজয় মেলার নামে চলছে নগ্ন নৃত্য ও রমরমা জুয়ার আসর

ঝিনাইদহের শৈলকুপার মহম্মদপুর গ্রামে বিজয় মেলার নামে নগ্ন নৃত্য ও রমরমা জুয়ার আসর চলছে। শৈলকুপার সংসদ সদস্য ও সাবেক প্রতিমন্ত্রী আব্দুল হাই মেলার উদ্বোধন করে আসার পর থেকেই বেসামাল নাচ-গান আর যাত্রা মঞ্চের পিছনে লাখ লাখ টাকার জুয়ার আসর চলছে। উঠতি বয়সী কলেজ পড়ুয়া শিক্ষার্থী আর গ্রাম্য যুবকের আড্ডায় জমে ওঠা গভীর রাত পর্যন্ত মহম্মদপুর গ্রামের মেলা প্রাঙ্গন এখন শুধুই অশ্লিলতার আগ্রাসন।
সরেজমিন মেলা ঘুরে দেখা গেছে, পনের দিন ব্যাপী এই বিজয় মেলা উদ্বোধনের আগেই মাঠ তৈরির জন্য সরকারী লাখ লাখ টাকার গাছ বিনা অনুমতিতে বিক্রি করা হয়। তবে সূত্রে গেছে, স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল হাই এ বিষয়ে কিছুই জানেন না। তার ভাবমুর্তি ও নাম ভাঙ্গিয়ে এই সমাজবিরোধী কাজ পরিচালিত হলেও নগদ নারায়নে তুষ্ট শৈলকুপা উপজেলা প্রশাসন।

এলাকাবাসির অভিযোগ, নিয়মিত বিজয় মেলার নামে রাতের আঁধারে চলছে উলঙ্গ নৃত্য আর লাখ লাখ টাকার জুয়ার আসর। প্রশাসনিক অনুমোদনের আগ থেকে শৈলকুপার পুলিশ ও ইউএনও অফিসকে ম্যানেজ করে এই মেলা চলছে। দুই সপ্তাহ অসামাজিক কাজ চলার পর হঠাৎ করে মেলা উদ্বোধন করা হয় নগ্ন নৃত্য ও জুয়ার আসর বৈধ করা জন্য। এ উপলক্ষে বিভিন্ন এলাকায় মাইকিং করে দৈনিক জোনাকি র‌্যাফেল ড্রর প্রচারাভিযান অব্যাহত রাখলেও মূলত বিচিত্রা অনুষ্ঠানের নামে সন্ধ্যার পর থেকেই শুরু হয় ‘ভ্যারাইটিজ শো’ নামক রঙিন নৃত্য। এর ফলে এলাকার শিক্ষার্থীদের লেখাপড়া লাঠে উঠেছে। যুব সমাজকে গ্রাস করছে অবক্ষয়ের নীল ছোবল।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক আয়োজকদের এক দম্পতি আওয়ার নিউজ বিডিকে জানান, বিচিত্রা অনুষ্ঠানের কথা না বললে প্রশাসনিক অনুমতি মেলেনা। এজন্য শৈলকুপা থানায় নিয়মিত টাকা দিয়ে ভ্যারাইজি শো এবং লাখ লাখ টাকার ডাব্বু জুয়া ও লটারী খেলা চালানো হচ্ছে। তাছাড়া আয়োজকরা সবাই স্থানীয় সংসদ সদস্যের কথিত আত্মীয় পরিচয় দিয়ে প্রভাব খাটিয়ে বিজয় মেলার নামে অশ্লিল নাচ-গান, জুয়ার আসর অব্যাহত রেখেছেন।

এলাকাবাসির অভিযোগ সংসদ সদস্যদের নাম ভাঙ্গিয়ে মেলায় অশ্লিলতার বিষবাষ্প ছড়িয়ে দেওয়ায় একদিকে যেমন আব্দুল হাই’র সম্মান হানী ঘটছে তেমনি এলাকার উঠতি বয়সী যুবসমাজ হচ্ছে বিপথগামী।

এ ব্যাপারে শৈলকুপা থানার অফিসার ইনচার্জ ছগির মিঞা আওয়ার নিউজ বিডিকে জানান, উপজেলার মহম্মদপুর গ্রামে বিজয় মেলার অনুমোদন হলেও যাত্রা বা জুয়ার অনুমোদন নাই। তিনি জুয়া ও নগ্ন নৃত্যের বিষয়ে পর্যবেক্ষন করে ব্যবস্থা গ্রহন করবেন বলে জানান।
এ বিষয়ে শৈলকুপাবাসি জুয়া ও নগ্ন নৃত্য বন্ধে স্থানীয় সংসদ সদস্য আব্দুল হাই ও ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।






মন্তব্য চালু নেই