মেইন ম্যেনু

বিএনপি ভেঙে যাচ্ছে : হানিফ

আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক ও কুষ্টিয়া-৩ সদর আসনের সংসদ সদস্য মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেছেন, ‘বিএনপির দল ভেঙে যাচ্ছে। জোট থেকে অনেক শরীক দল বেরিয়ে যাচ্ছে। দলের মধ্যে নেতাকর্মীরা হতাশ হয়ে আওয়ামী লীগে যোগদান করছেন। নিজেদের মধ্যে মারামারি হানাহানিতে দলটি এখন বিপর্যস্ত।’
শুক্রবার দুপুরে কুষ্টিয়ার নিজ বাসভবনে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে এসব কথা বলেন তিনি।
মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, ‘দেশকে এগিয়ে নিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষার জন্য যা যা করা দরকার সরকার তাই করে যাচ্ছে।’
তিনি বলেন, ‘যারা সন্ত্রাসী কার্যক্রম করছে, মানুষকে পেট্রোল দিয়ে পুড়িয়ে মারছে তাদের সঙ্গে মধুর সর্ম্পক স্থাপন করতে হবে এমন রাজনীতিতে আওয়ামী লীগ বিশ্বাসী নয়। জামায়াতে ইসলামী মানবতাবিরোধী এবং যুদ্ধাপরাধীর দল। তারা একাত্তরে যে অপরাধ করেছিল এখনও সুযোগ পেলেই সে ধরনের অপরাধ করে যাচ্ছে।’
আওয়ামী লীগের এই নেতা আরও বলেন, ‘সুযোগ পেলে তারা বোমা হামলা করে যাচ্ছে। পেট্রোল দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারছে। একাত্তরের অভ্যাস থেকে তারা এখনও বেরিয়ে আসতে পারেনি। জামায়াতকে আর রাজনৈতিক দল হিসেবে বিবেচনা করার যৌক্তিতকা নেই।’
জামায়াত ইতোমধ্যেই নিজেদের জঙ্গি সংগঠন হিসেবে পরিচিত করেছে। এই সন্ত্রাসী সংগঠনকে নিষিদ্ধ করার দাবি এখন সাধারণ মানুষের বলেও মনে করেন তিনি।
পরে কুষ্টিয়া শহরের শ্রী শ্রী গোপীনাথ জিউর মন্দির প্রাঙ্গনে শুভ বিজয়া পূণর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন মাহবুব-উল আলম হানিফ।
এ সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘ধর্ম যার যার রাষ্ট্র সবার। কেউ যদি কারও ধর্মের ওপর আঘাত হানে তাহলে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।’
হানিফ বলেন, ‘অসাম্প্রদায়িক দেশ গড়তে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হতে হবে। এজন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেভাবে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছেন, সেভাবেই দেশ আরও সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন বলে আমি বিশ্বাস করি।’
তিনি তিনি বলেন, ‘ঘাতক চক্র বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করলেও তার স্বপ্ন ও আদর্শের মৃত্যু হয়নি। বঙ্গবন্ধুর ত্যাগ ও তিতিক্ষার দীর্ঘ সংগ্রামী জীবনাদর্শ বাঙালি জাতির অন্তরে প্রোথিত হয়ে আছে। আসুন, আমরা জাতির পিতাকে হারানোর শোককে শক্তিতে পরিণত করে তার স্বপ্ন সোনার বাংলা প্রতিষ্ঠায় আত্মনিয়োগ করি।’
হানিফ বলেন, ‘ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত, শান্তিপূর্ণ, সমৃদ্ধ, অসাম্প্রদায়িক বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার এ সংগ্রামে আমাদের অবশ্যই আমাদের জয়ী হতে হবে। ক্ষুধামুক্ত ও দারিদ্রমুক্ত বাংলাদেশ গড়তে চেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যার কারণে বাঙালীরা যুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েছিলেন। ৩০ লাখ শহীদ এবং দুই লাখ মা-বোনের সম্ভ্রমের বিনিময়ে এদেশ স্বাধীন হয়েছিল।’
দেশের উন্নয়নে আওয়ামী লীগ সরকার ব্যাপক কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘বিএনপি-জামায়াত জোটের রেখে যাওয়া অর্থনৈতিক অচলাবস্থা এবং বিশ্বমন্দা কাটিয়ে দেশকে দৃঢ় অর্থনৈতিক ভিত্তির উপর দাঁড় করিয়েছে আওয়ামী লীগ। বিএনপি-জামায়াতের অরাজকতা উপেক্ষা করে দেশের জনগণ ৫ জানুয়ারির নির্বাচনে পুনরায় আমাদের বিজয়ী করেছে। সুন্দর সমৃদ্ধ একটি বাংলাদেশ গড়ার প্রত্যয়ে ‘রূপকল্প ২০২১’ ও ‘রূপকল্প ২০৪১’ বাস্তবায়নের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে সরকার।’
জেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি অ্যাডভোকেট অনুপ কুমার নন্দীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য রাখেন কুষ্টিয়া-১ আসনের সংসদ সদস্য রেজাউল হক চৌধুরী, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজগর আলী, কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর বদরুদ্দোজা, কুষ্টিয়ার জেলা প্রশাসক সৈয়দ বেলাল হোসেন, পুলিশ সুপার (এসপি) প্রলয় চিসিম, পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নরেন্দ্রনাথ সাহা প্রমুখ।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই