মেইন ম্যেনু

বামনের সঙ্গে হস্তিনীর বসবাস

ছোট থেকে সখ ছিল মডেল হওয়ার। কিন্তু অস্বাভাবিক উচ্চতা আর বিশাল আকৃতির শরীরে কারণে আমাজন আমান্ডার মডেল হওয়া হয়ে ওঠেনি। তবে মূলধারার মডেল হতে না পারলেও ভিন্ন ধারার মডেল হয়ে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছেন আমান্ডা। অনেকে পুরুষের কাছেই হয়ে উঠেছেন কাঙ্খিত নারী।

আমান্ডার বয়স যখন ১২ তখনই তার উচ্চতা ৬ ফুট। আর বর্তমানে ৩৮ বছর বয়সী আমান্ডার উচ্চতা ৬ ফুট ৩ ইঞ্চি। উচু হিল পরলে সেটা হয়ে যায় ৬ ফুট ৯ ইঞ্চি। মজার ব্যাপারে বাংলাদেশে মোটা মেয়েদের দিকে মানুষ নাক কুচকে তাকালেও আমান্ডা মডেল হিসেবে বেশ জনপ্রিয়তা পেয়েছেন।

আমান্ডার মডেলিংয়ের ধরনটা আসলে বেশ মজার এবং ব্যতিক্রম। মার্কিন এই নারী অর্থের বিনিময়ে পুরুষদের সঙ্গে সময় কাটান। অনেক পুরুষই তার সান্নিধ্য পেতে আগ্রহী। বিশেষ করে খাটো পুরুষরা তার সঙ্গে সময় কাটিয়ে বেশ আনন্দ পান। আমান্ডা জানান তিনি নিজেও খাটো গ্রাহকদের পছন্দ করেন।

কিছু দিন আগেই আমান্ডার সঙ্গে সময় কাটানোর জন্য মোটা অঙ্কের টাকা খরচ করেন সার্জিও মিরান্ডা। ৫ ফুট ৩ ইঞ্চি উচ্চতার ক্ষীণকায় মিরান্ডার থেকে আমান্ডার উচ্চতা ১ ফুট বেশি। তাছাড়া আমান্ডার বিশাল বপুর কাছে মিরান্ডারক দেখলে বামনই মনে হবে।

তারপরেও গাঁটের পয়সা খরচ আমান্ডার সঙ্গে সময় কাটানো কেন? মিরান্ডা জানালেন বিশাল আকৃতির নারীদের সঙ্গে সময় কাটিয়ে বেশ মজা পান তিনি। রাস্তায় আমান্ডার মতো বিশাল দেহী এক নারীর পাশাপাশি হাঁটছেন আর আশপাশের লোকজন তাদের দিকে কৌতুহল নিয়ে তাকিয়ে আছে। এটা ভাবতেই তার অন্যরকম লাগে বলে জানান মিরান্ডা।

শুধু মিরান্ডা একাই নন, মিরান্ডার মতো আরো অনেকেই আছেন যারা আমান্ডার সঙ্গে সময় কাটাতে উদগ্রীব। গ্রাহকদের সেবা দিতে আমান্ডা ইতোমধ্যেই পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ চষে বেড়িয়েছেন। একবার এক মৃতু পথযাত্রী আমান্ডাকে প্রস্তাব করেন ৩০ হাজার ইউরোর বিনিময়ে তার পিঠে বসার। শুধু ক্ষণিকের জন্য নয় যতক্ষণ না তার মৃত্যু হবে ততক্ষণ পর্যন্ত আমান্ডাকে তার পিঠের ওপর বসে থাকতে হবে।

নিজের পেশা সম্পর্কে আমান্ডা বলেন পেশা নিয়ে তিনি মোটেও বিব্রত নন। তার পরিবারও তার পেশাকে মেনে নিয়েছেন। এমনকি লাস ভেগাসে এক গ্রাহকের সঙ্গে সময় কাটাতে যাওয়ার সময় নিজের মাকে সঙ্গে নিয়েছিলেন তিনি। তবে মাঝে মাঝে কিছু সময় বিপত্তিতে পড়তে হয় আমান্ডাকে। তিনি জানান, যদিও গ্রাহকদের সঙ্গে চুক্তি থাকে যে আমি তাদের সঙ্গে শুধু সময় কাটাবো। তারপরেও মাঝে মাঝে কোনো গ্রাহক শারীরিকভাবে উত্তেজিত হয়ে ওঠেন। তবে কখনোই গ্রহাকদের সঙ্গে দৈহিক সম্পর্কে জড়ান না বলে দাবি করেন আমান্ডা।






মন্তব্য চালু নেই