মেইন ম্যেনু

ফুলবাড়ীতে যুবলীগের ৪২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে উপজেলা যুবলীগের ৪২ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী র্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। গত মঙ্গলবার ১১ নভেম্বর বিকেল ৪ টায় উপজেলা যুবলীগের সভাপতি খাজা মইনুদ্দীনের নেতৃত্বে এক বিশাল র্যালী দলীয় কার্য্যালয় থেকে বের হয়ে ফুলবাড়ী শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে দলীয় কার্য্যালয়ে এসে শেষ হয়। র্যালী শেষে এক আলোচনা সভা যুবলীগের সভাপতি খাজা মইনুদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বাষিকীতে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, ফুলবাড়ী উপজেলা যুবলীগের প্রধান সমন্বয়ক এ্যাডভোকেট মহিউদ্দীন কাদের। অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন, ফুলবাড়ী উপজেলা যুব লীগের সহ সভাপতি মোঃ মোকারম হোসেন (বিদ্যুৎ), সাধারন সম্পাদক মোঃ গোলাম মওলা রঞ্জু, যুগ্ন সাধারন সম্পাদক সম্ভু প্রসাদ, সাংগাঠনিক সম্পাদক নূর কুতুবুল আলম চৌধুরী (মিম), যুগ্ন সাংগঠনিক সম্পাদক ধীমান চন্দ্র সাহা প্রমুখ।

ফুলবাড়ীতে চলছে শীতকে বরণ করার প্রস্তুতি
দেশের উত্তরাঞ্চলের জেলা দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলায় শুরু হয়েছে শীতের আমেজ । বিকাল থেকেই শীতল হাওয়া আর সন্ধ্যার পর পরই কুয়াঁশা ঝরতে শুরু করেছে । মধ্য রাতের পর টিনের চালা থেকে পড়ছে হালকা বৃষ্টির মত পানি । সকালে গাছ গাছালিতে জমে থাকছে শিশির । সূর্য উঠার অনেক পর পযন্ত জমে থাকা শিশির দেখা যচ্ছে । এদিকে শীতের প্রস্তুতি হিসেবে অনেকেই পুরনো শীত বস্ত্র ঠিক ঠাক করে নিচ্ছেন । আবার অনেকে নতুন করে লেপ-তোষক তৈরী করে নিচ্ছেন । প্রত্যন্ত অঞ্চলে নিম্ন আয়ের মানুষের শীত নিবারণের একমাত্র অবলম্বন কাঁথা । এসব পরিবারের নারী সদস্যরা এখন কাজের ফাঁকে তাদের পুরনো কাঁথা মেরামত আর ছেঁড়া শাড়ি -লুঙ্গি দিয়ে নতুন কাঁথা তৈরীতে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন ।
হিমালয়ের কাছের দিনাজপুর জেলার ফুলবাড়ী উপজেলায় শীত নামে বেশ আগে ভগেই । এবারো এর ব্যতয় ঘটেনি । মধ্য আশ্বিনের পর থেকেই শুরু হয়েছে হালকা কুয়াশা । ক্রমেই তা ভারি হচ্ছে । ক’দিন থেকে সন্ধ্যার পরই শুরু হয়েছে মাঝারি কুঁয়াশা । ভোর পযর্ন্ত হালকা থেকে মাঝারি কুয়াঁশার পরিমান বেড়ে যাওয়ায় সকালে সূর্য উঠার পরও জমির আইল দিয়ে হাঁটলে শরীর ভিজে যাচ্ছে । শীষ বের হওয়া আমন ধানের গাছ সূর্য উঠার অনেক পর পর্যন্ত শিশির লেগে থাকছে । এখন ফুলবাড়ীর সর্বত্র চলছে শীতকে বরণ করার প্রস্তুতি । শীতের রাতে বিছানায় পরিবারের সদস্যদের উষ্ণ রাখতে সবাই ব্যস্ত লেপ-তোষক মেরামত আর নতুন করে তৈরী করতে । এজন্য ফুলবাড়ী শহর সহ উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজারগুলোতে এসব তৈরীর কারিগরদের কাজের গতি বেড়ে গেছে। তাদের এখন দম ফেলাবার ফুরসত নেই । ফুলবাড়ী শহরের নিমতলা মোড়, বাজার রোড সহ বিভিন্ন লেপ-তোষক তৈরীর দোকানগুলোতে দেখা গেছে সব কারিগর ব্যস্ত নতুন লেপ তৈরীতে । কথা বলার সময় নেই তাদের । কয়েক মাস তাদের হাতে কাজ না থাকায় মৌসুম শুরু হওয়ায় দ্র্বত কাজ করে তারা বাড়তি টাকা আয় করছেন । আর যাদের এগুলো তৈরীর সার্মথ্য নেই , তারা ব্যস্ত কাঁথা নিয়ে।শীত নিবারণের জন্য এটাই তাদের বড় উপকরণ । জেলার প্রত্যন্ত এলাকার ঘুরে দেখা গেছে ,অনেক নারী ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তাদের পুরনো কাঁথা নতুন করে শেলাই করতে । বাড়ির পাশে গাছের নিচে বসে রং বেরঙের সুতো দিয়ে তারা তৈরী করছেন নতুন কাঁথা । সারা বছর ব্যবহারের পর ছিড়ে যাওয়া শাড়ি আর লুঙ্গি দিয়ে তৈরী হচ্ছে এসব কাঁথা । অপেক্ষাকৃত উচুঁ জমিতে কৃষকরা আবাদ করেছে বিভিন্ন ধরনের শাক-সবজি । শাক-সবজি ইতিমধ্যে হাট-বাজার গুলোতে উঠতে শুরু করেছে । শীতের শাক-সবজির দামও বেশ ভাল । হাসি ফুটেছে কৃষকের মুখেও ।

 

ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি ১ কোটি ১১ লাখ সাড়ে ৫ হাজার টাকার মাদকসহ পণ্য আটক

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি ফুলবাড়ী-বিরামপুর সীমান্ত এলাকায় অভিযান চালিয়ে গত দেড় মাসে ১ কোটি ১১ লাখ সাড়ে ৫ হাজার টাকার মাদকসহ বিভিন্ন পণ্য সীমান্ত থেকে আটক করেন। ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্ণেল এম জাহিদুর রশীদ (পিএসসি) জানান, গত সাড়ে মাসে ফুলবাড়ী, বিরামপুর সীমান্ত এলাকায় টহল বিজিবি’র সদস্যদেরকে নিয়ে গোপন সূত্রে সংবাদ পেয়ে অভিযান চালিয়ে ১ কোটি ১১ লাখ ৫ হাজার ৪০০ টাকার মাদকসহ বিভিন্ন পণ্য আটক করেন। এর মধ্যে গত ১২ নভেম্বর ২০১৪ ইং তারিখে ফেন্সিডিল ৪৭ বোতল, ভারতীয় মদ ২২ বোতল, গাঁজা ১৭০ কেজি এবং গত দেড় মাসে মোটর সাইকেলসহ ভারতীয় শাড়ী, কসমেটিক্স, প্যাথেডিন ট্যাবলেট, সার, সিমেন্ট ও আরও অন্যান্য মালামাল আটক করেন।

ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবি অধিনায়ক লে. কর্ণেল এম জাহিদুর রশীদ (পিএসসি) জানান, সীমান্ত এলাকায় চোরাচালান বন্ধকল্পে সকল বিওপি’র বিজিবি সদস্যদেরকে সজাগ থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। পাশাপাশি সীমান্তে যাতে কোন প্রকার চোরাকারবারী সীমান্ত অতিক্রম করে ভারতে প্রবেশ করতে না পারে এবং সীমান্তের ওপার থেকে কোন ভারতীয় নাগরিক অবৈধভাবে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে না পারে সে জন্য বিজিবি’র সদস্যরা দিন রাত দায়িত্ব নিয়ে কাজ করছে।

 

ফুলবাড়ীর মিরপুর গ্রামের পল্লী থেকে ভূমি দস্যুরা ৪৫ হাজার টাকার ধান কেটে নিয়ে যায়

দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার কাজিহাল ইউনিয়নের মিরপুর গ্রামের কৃষক হাবিবুর রহমানের জমির ধান  গভীর রাতে কেটে নিয়ে যায় ঐ এলাকার ভূমি দস্যুরা। উপজেলার কাজিহাল ইউনিয়নের মিরপুর গ্রামের মোঃ চড়িক্ষি মন্ডল ওরফে চৈতা, পুত্র মোঃ হাবিবুর রহমানের লিখিত অভিযোগে জানা যায়, আমন মৌসুমে মিরপুর মৌজার ১০৪৯ দাগে এক একর জমি বৈধ কাগজ সূত্রে জমির মালিক হন। চলতি বছর ঐ জমিতে গুটি স্বর্ণা ও জিরা  ধান রোপন করেছিল। গত মঙ্গলবার ১০ নভেম্বর তারিখে গভীর রাত্রিতে পূর্ব পরিকল্পিত ভাবে ঐ এলাকার ভূমি দস্যু মোঃ জহির উদ্দিন (৬২), মোঃ ইব্রাহিম (৫৫) মোঃ মোফাজ্জল হোসেন (৫০) সর্ব পিতা- মৃত বাটু মন্ডল, সং- মিরপুর (জলেশ্বরী) উপজেলা- ফুলবাড়ী, দিনাজপুর। গংরা দলবদ্ধ হয়ে যোগসাজস করে ভূমি দস্যুরা রত্রিতে লাঠি, ধারালো ছোরা নিয়ে জমিতে প্রবেশ করে ৪০ শতক জমির ধান কেটে নিয়ে যায়। যার মূল্য ৪৫ হাজার টাকা। উক্ত ধান অত্র এলাকার আটপুকুর হাটে ঐ দিন ভূমি দস্যুরা বিক্রি করার সময় জমির মালিক মোঃ হাবিবুর রহমান ও সঙ্গী সাথী আটক করে। এ সময় স্থানীয় গন্যমান্য ব্যাক্তিবর্গের মধ্যস্থতায় ভেড়ম গ্রমের মোঃ আবু সাঈদ চৌধুরী, ইউ.পি সদস্যের নিকট জমা রখেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন মিরপুর গ্রামের মোঃ কাঞ্চন (২৮), পিতা – মোঃ ইদ্রিস আলী,মোঃ নজমুল (৫৫), পিতা- সোবহান আলী, মোঃ বেলাল উদ্দিন (৪৫) ইউ,পি সদস্য, মোঃ ফয়াজার (৩৩) পিতা- অজ্ঞাত, সর্ব সাং- মিরপুর (জলেশ্বরী), থানা- ফুলবাড়ী, জেলা- দিনাজপুর।

মোঃ হাবিবুর রহমান গত সোমবার ১১ নভেম্বর তারিখে ৩ জনকে আসামী করে ঐ অসহায় গরিব কৃষক ফুলবাড়ী থানায় একটি আভিযোগ দাখিল করেন। এ দিকে ঐ ভূমি দস্যুরা জমির মলিক হাবিবুর রহমান কে বিভিন্ন প্রকার ভয়ভীতি ও হুমকি দেন।

এব্যাপারে ফুলবাড়ী থানার অফিসার ইনর্চাস এ বি এম রেজাউল ইসলাম জানান, অভিযোগ পেয়েছি তদন্ত সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই