মেইন ম্যেনু

বৃহস্পতিবার রাজপথ-রেলপথ অবরোধ

ফুলবাড়ীতে প্রতিরোধর মুখে এশিয়া এনার্জি

দিনাজপুরের ফুলবাড়ীতে খনি বাস্তবায়নের প্রস্তাবকারী বহুজাতিক কোম্পানী এশিয়া এনার্জির প্রধান গ্যারি এন লাইয়ের আগমন ও এশিয়া এনার্জির সমর্থকদের নিয়ে মতবিনিময় সভা করায় গতকাল বুধবার দিনভর উত্তপ্ত ছিল। গ্যারি এন লাইয়ের আগমন ও এশিয়া এনার্জির তৎপরতার প্রতিবাদে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত রাজপথ ও রেলপথ অবরোধের ঘোষণা দিয়েছে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি ও ফুলবাড়ী সম্মিলিত পেশাজীবী সংগঠন ।

গতকাল বুধবার দুপুর ১২টার দিকে ফুলবাড়ীর রাজারামপুর ময়দার মিল এলাকায় এশিয়া এনার্জির কার্যালয় ও গ্যারি এন লাইয়ের গাড়ি ভাঙচুর করেছে ক্ষুব্ধ জনতা। পরে পুলিশ গ্যারি এন লাইসহ এশিয়া এনার্জির কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সেখান থেকে উদ্ধার করে দিনাজপুরে নিয়ে যায়।

এশিয়া এনার্জির একটি সূত্র জানায়, গ্যারি এন লাই গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সস্ত্রীক ফুলবাড়ীতে আসেন। শহরে এশিয়া এনার্জির গেস্ট হাউসে ওঠেন তাঁরা। তিনি তাঁর কোম্পানির লোকজন নিয়ে রাতে তিনটি বৈঠক করেন। গতকাল বুধবার সকাল ১০টার দিকে কোম্পানির কোর ইয়ার্ডে আরও একটি বৈঠক করেন। ওই মিটিংয়ে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা কমিটির ছয় থানার সমন্বয়ক ও ফুলবা​ড়ী উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম ও ফুলবাড়ী শাখার তেল- গ্যাস বিদ্যুৎ বন্দর রক্ষা কমিটির সাবেক সদস্য সচিব ও সাবেক পৌর কমিশনার এস.এম নুরুজ্জামান। এক ঘণ্টা পর বৈঠক থেকে বেরিয়ে এসে ফুলবাড়ী শহরের নিমতলায় স্থানীয় লোকজনের সঙ্গে বৈঠক করে তাঁরা বিষয়টি অবহিত করেন।

এ খবর ফুলবাড়ী পৌর বাজারে ছড়িয়ে পড়ার সঙ্গে সঙ্গে এলাকাবাসী উত্তেজিত হয়ে ওঠেন। এ সময় তেল–গ্যাস–খনিজ সম্পদ ও বিদুৎ বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটির ফুলবাড়ী শাখার নেতা-কর্মীরা ফুলবাড়ী শহরের নিমতলা মোড়ে অবস্থান নেন ও দিনাজপুর-ঢাকা মহাসড়ক অবরোধ করেন। বেলা ১১টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত এ অবরোধ চলে। এতে মহাসড়কের উভয় দিকে শত শত যানবাহন আটকা পড়ে।

এ সময় বিভিন্ন মহল্লা থেকে খণ্ড খণ্ড মিছিল এসে অবরোধ স্থলে যোগ দেয়। এরপর ফুলবাড়ির পৌর মেয়র মর্তুজা সরকার মানিকের নেতৃত্বে ফুলবাড়ী সম্মিলিত পেশাজীবী সংগঠন অবরোধ স্থলে পৌঁছায়।

অবরোধ চলাকালে দেওয়া বক্তব্যে মানিক সরকার এক ঘণ্টার মধ্যে গ্যারি এন লাইকে ফুলবাড়ী ছাড়তে পুলিশ ও প্রশাসনকে আলটিমেটাম দেন। তবে ২ ঘণ্টা পেরিয়ে গেলেও গ্যারি ফুলবা​ড়ী না ছাড়ায় উত্তেজিত জনতা এশিয়া এনার্জির ফুলবাড়ী কার্যালয় ও কার্যালয়ের বাইরে গ্যারি এন লাইয়ের দুটি গাড়ি ভাঙচুর করেন।

ফুলবাড়ী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মনিরুজ্জামান ও ফুলবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ বি এম রেজাউল ইসলাম জানান, পুলিশ ব্যারিকেড দিয়েও জনতার ঢল সামলাতে পারেনি। পরে পৌর মেয়র মর্তুজা সরকার মানিক, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম, সাবেক পৌর কমিশনার এস.এম নুরুজ্জামান সহ নেতাদের সহযোগিতায় উত্তেজিত জনতাকে শান্ত করা সম্ভব হয়।

একপর্যায়ে কড়া পুলিশি পাহারায় গ্যারি এন লাই ও তাঁর স্ত্রীসহ এশিয়া এনার্জির ১০-১২ জন কর্মকর্তা-কর্মচারীকে তিনটি গাড়ি করে দিনাজপুরে নিয়ে যায় পুলিশ।

বিকেল সাড়ে ৪ টায় নিমতলা মোড়ে তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি এক সভা করে। সভা থেকে আজ বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা ছয়টা পর্যন্ত ফুলবাড়ীতে রেল ও রাজপথ অবরোধ কর্মসুচি ঘোষণা করা হয়। সংগঠনের ফুলবাড়ী উপজেলা আহ্বায়ক মো. সাইফুল ইসলাম এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ফুলবাড়ি পৌরসভার মেয়র ও ফুলবাড়ী খনিবিরোধী আন্দোলনের অন্যতম নেতা মর্তুজা সরকার মানিক বলেন, কয়েক মাস আগে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জ্বালানি মন্ত্রণালয়ের এক সভায় খাদ্য নিরাপত্তা এবং মানুষের জীবন ও সম্পদের কথা উল্লেখ করে ‘ফুলবাড়িতে খনি বাস্তবায়নের কোনো পরিকল্পনা সরকারের নেই’ বলে ঘোষণা দিয়েছেন। তা সত্ত্বেও গ্যারি এন লাইয়ের ফুলবাড়ীতে আসা এলাকাবাসীকে বিক্ষুব্ধ করেছে।

তেল-গ্যাস-খনিজ সম্পদ ও বিদ্যুৎ-বন্দর রক্ষা জাতীয় কমিটি ফুলবাড়ী উপজেলার সভাপতি মো. সাইফুল ইসলাম বলেন, ২০০৬ সালে খনিবিরোধী আন্দোলনে তিনজন নিহত হন। আহত হন দেড় শতাধিক মানুষ। অনেকে পঙ্গুত্ব বরণ করেন। আট বছর পর অত্যন্ত গোপনে হঠাৎ করে এশিয়া এনার্জি প্রধানের ফুলবাড়ী আগমন ও খনির পক্ষে ‘দালালদের’ নিয়ে সভা করা ফুলবাড়ীবাসী মেনে নিতে পারেনি।






মন্তব্য চালু নেই