মেইন ম্যেনু

ফুটবলের মৃত্যু!

আফ্রিকান সুপারকাপ ন্যাশনসের কোয়ালিফায়িং ম্যাচে সুদানের কাছে নাইজেরিয়ার হারের জন্য কোচ স্টিফেন কেশি বা খেলোয়াড়দের কোনো দোষ নেই। বরং সুপার ইগলদের দেশে ফুটবলেরই মৃত্যু ঘটেছে!
এমনি হতাশাব্যঞ্জক কথা বলেছেন নাইজেরিয়া ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক জে জে ওকোচা।
সাবেক এই প্যারিস সেইন্ট-জারমেইন মিডফিল্ডার বলেন, তার দেশে ফুটবল বিদায় নিয়েছে এবং অনেক আগেই এর মৃত্যু ঘটেছে। গত শনিবার সুদানের কাছে ১-০ তে হারের জন্য কোচ বা ফুটবলারদের দোষ দিতে তিনি রাজি নন।
ওই খেলায় প্রথমার্ধেই স্ট্রাইকার বাকরি আবদ এলগাদিরের দুর্দান্ত হেডে গোলকিপার ভিনসেন্ট এনিয়েমাকে ফাঁকি দিয়ে বল ঢুকে যায় গোলপোস্টে। আর এতেই নির্ধারিত হয় আফ্রিকান এই সাবেক চ্যাম্পিয়নদের ভাগ্য।
এই পরিণতির কারণে ২০১৫ সালে মরক্কোতে অনুষ্ঠেয় বিশ্বকাপে খেলতে পারা না পারার বিষয়টি নাইজেরিয়ার জন্য কঠিন হয়ে গেল।
এ কারণেই চরম হতাশাগ্রস্ত ওকোচা বলেন, ‘যারা কেশি বা ছেলেদের দোষ দিচ্ছে তারা তাৎক্ষণিক সমস্যাটাই দেখছেন। আসলে আমাদের ফুটবল অনেক আগেই মারা গেছে এবং দেশ থেকে বিদায় নিয়েছে। এখন শুধু এর আনুষ্ঠানিক ঘোষণা বাকি।’
এক টুইট বার্তায় এ কথা বলেন ওকোচা।
নাইজেরিয়া এখন এক পয়েন্ট নিয়ে গ্রুপ ‘এ’ এর পয়েন্ট টেবিলের একেবারে তলানিতে রয়েছে। তিনটি ম্যাচ খেলে তারা এ পয়েন্ট অর্জন করতে পেরেছে। যেখানে দক্ষিণ আফ্রিকা কঙ্গোকে ২-০ তে হারিয়ে সাত পয়েন্ট নিয়ে রয়েছে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে।
বুধবার আবারো সুদানকে প্রতিপক্ষ হিসেবে পাচ্ছে নাইজেরিয়া। জানুয়ারিতে মরক্কোর মাঠে খেলার এটাই শেষ সুযোগ।






মন্তব্য চালু নেই