মেইন ম্যেনু

ফিরছেন স্পিকার, সেজেছে সংসদ

১৮ দিনের সফর শেষে মঙ্গলবার বিকেলে দেশে ফিরছেন স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী। এর আগেও তিনি বিদেশ সফরে গেছেন। তবে এবারের ফেরাটা একটু অন্যরকম। কেবল স্পিকার হিসেবে নয়, এবার তিনি ফিরছেন বিরল সম্মান নিয়ে। কমনওয়েলথ পার্লামেন্ট অ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) চেয়ারপারসন নির্বাচিত হয়েছেন তিনি।

গত ৯ অক্টোবর ক্যামেরুনের রাজধানীতে সিপিএ নির্বাচনে ৭০ ভোট পেয়ে চেয়ারপারসন নির্বাচিত হন ড. শিরীন। বাংলাদেশে তিনিই প্রথম এ পদটি অর্জন করেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন আইল্যান্ডের প্রথম নারী মন্ত্রী ও বর্তমান স্পিকার জুলিয়ানা। তিনি পেয়েছেন ৬৭ ভোট।

এর ঠিক সাতদিনের মাথায় ১৬ অক্টোবর জেনেভায় ইন্টার-পার্লামেন্টারি ইউনিয়ন (আইপিইউ) সভাপতির পদটিও ছিনিয়ে আনে বাংলাদেশ। তিন দেশের সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতায় সভাপতি নির্বাচিত হন সাবের হোসেন চৌধুরী।

একসঙ্গে দুই আনন্দ সংবাদে জাতীয় সংসদ মেতে ওঠে। সংসদ সদস্যদের পাশাপাশি সংসদ সচিবালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের চোখে মুখেও সে আনন্দ ঝিলিকের দেখা মেলে। সিপিএ ও আইপিইউর নবনির্বাচিত দুই সভাপতিকে বরণে সংবর্ধনার সিদ্ধান্ত নেয় সংসদ। ২২ অক্টোবর দেয়া হবে সেই সংবর্ধনা। এ জন্য একাধিক প্রস্তুতি সভাও হয়েছে। ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়ার সভাপতিত্বে সংবর্ধনায় প্রধান অতিথি থাকবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সংবর্ধনাকে সামনে রেখে সংসদকে সাজানোর কাজ শুরু হয়ে গেছে দুই-তিন দিন আগ থেকেই। পুরো সংসদ চত্বর জুড়ে লাগানো হয়েছে বাহারি রঙের আলোকবাতি। আলোকসজ্জায় রাঙানো হয়েছে সংসদের মূল স্থাপনাও। সংসদে প্রবেশের সড়ক আর স্পিকারের বাড়িও আলোয় ঝলকে উঠছে। মানিক মিয়া অ্যাভিনিউ থেকে সংসদ ভবন এলাকার এমন রূপ দেখে ‘থমকে’ যাচ্ছেন অনেকেই।

সংবর্ধনার জন্য দক্ষিণ প্লাজায় বড় মঞ্চ নির্মাণের কাজ চলছে। উচ্চক্ষমতা সম্পন্ন শব্দযন্ত্র আর প্যান্ডেল সাজানোর সরঞ্জামও আনা হয়েছে সোমবার রাতে। মঙ্গলবার দুপুরের মধ্যেই সব প্রস্তুতি শেষ হবে।

আজ বিকেলে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে স্পিকার ও তার সঙ্গে থাকা প্রতিনিধিদলের পৌঁছানোর কথা রয়েছে। সাড়ে ৪টায় বিমানবন্দরের ভিআইপি লাউঞ্জে গণমাধ্যম কর্মীদের সঙ্গে প্রেস ব্রিফিং করবেন স্পিকার।

এ বিষয়ে জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ বাংলামেইলকে বলেন, ‘একইসঙ্গে সিপিএ ও আইপিইউর সভাপতির পদ অর্জন করা একটি দেশের জন্য অনেক সম্মানজনক। দশম জাতীয় সংসদ নিয়ে বিএনপি জামায়াত ও সরকার বিরোধীজোট নানা ধরনের তর্ক বিতর্ক ছড়ালেও আন্তর্জাতিক মহলে এ সংসদ স্বীকৃতি লাভ করেছে। বিশ্ববাসী এ সংসদকে স্বীকৃতি দিয়েছে।’

সংবর্ধনা অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে যেসব অতিথিদের আমন্ত্রণ জানানো হয়, এখানেও আমরা তাদেরকে আমন্ত্রণ জানিয়েছি। পাশাপাশি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা, কূটনৈতিক ও দেশের বিশিষ্টজনেরা এ সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে অংশ নেবেন। ড. শিরীন শারমিন ও সাবের হোসেন চৌধুরীকে ক্রেস্ট দিয়ে বরণ করে নেবো। সংসদের পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীকেও আমরা ক্রেস্ট উপহার দেবো।’

এদিকে গত ৩ অক্টোবর ক্যামেরুনে সিপিএ’র ৬১তম সভায় যোগ দিতে ঢাকা ত্যাগ করেন স্পিকার। তার সঙ্গে ১৭ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদলও রয়েছে। তাদের মধ্যে রয়েছেন সাবের হোসেন চৌধুরী, মেজর (অব.) রফিকুল ইসলাম, ফারুক খান, ইমরান আহমেদ, ফজলে করিম চৌধুরী, মঈনুদ্দিন খান বাদল, টিপু মুনশি, সাধন চন্দ্র মজুমদার, নূরুল ইসলাম ওমর, কাজী নাবিল আহমেদ ও শফিকুল ইসলাম।

ক্যামেরুন সফর শেষে সুইজারল্যান্ডের রাজধানী জেনেভায় আইপিইউ’র ১৩১তম সাধারণ অধিবেশনে যোগ দেন স্পিকার। ১১ অক্টোবর আইপিইউ’র গ্লোবাল কনফারেনস্ অব ইয়াং এমপিস কনফারেন্সে যোগ দেন তিনি। ১৬ অক্টোবর আইপিইউ’র সভাপতি পদে সাবের হোসেন চৌধুরী জয়ী হন।

পরে দিল্লিতে বাংলাদেশ-ভারত সর্ম্পক উন্নয়ক বিষয়ক একটি সেমিনারে অংশ নেন ড. শিরীন। ২০ অক্টোবর দেশটির ভাইস প্রেসিডেন্ট হামিদ আনসারির সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই