মেইন ম্যেনু

ফরিদপুরে চাঁপা রানী হত্যা মামলায় রনির মৃত্যুদণ্ড

ফরিদপুরে ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদকারী চাঁপা রানী হত্যা মামলার প্রধান আসামি দেবাশীষ সাহা রনিকে মৃত্যুদণ্ডাদেশ দিয়েছেন আদালত।

সোমবার সকালে ফরিদপুরের জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো. আনোয়ারুল হক এ রায় ঘোষণা করেন। মামলার রায়ে অপর দুই আসামি সঞ্জয় বিশ্বাস অপু এবং আলমগীর হোসেনের বিরুদ্ধে অপরাধ প্রমাণিত না হওয়ায় আদালত তাদের বেকসুর খালাস দেন।

রায় ঘোষণার সময় আদালতের এজলাসে অপু ও আলমগীর উপস্থিত ছিলেন। তবে প্রধান আসামি রনি জামিনে মুক্তি লাভের পর থেকে পলাতক রয়েছেন।

আদালত রায়ে উল্লেখ করেন, সন্দেহাতীতভাবে দেবাশীষ সাহার বিরুদ্ধে অপরাধ প্রমাণিত হওয়ায় মৃত্যু না হওয়া পর্যন্ত ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করা হবে। আগামী সাতদিনের মধ্যে পলাতক আসামি দেবাশীষ সাহাকে আত্মসমর্পণ অথবা গ্রেপ্তার করতে হবে। আদালত একই সঙ্গে পলাতক আসামি মৃত্যু ও গ্রেপ্তারি পরোয়না জারি করেন। তবে আসামি উচ্চ আদালতে এই রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন।

গত ২৬ মে রাষ্ট্র ও আসামি পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে বিচারক ৯ জুন মামলার রায় ঘোষণার দিন ধার্য্য করেন। এ মামলায় বাদী ও তদন্ত কর্মকর্তাসহ মোট ২৪ সাক্ষী আদালতে সাক্ষ্য দেন।

২০১০ সালে ২৬ অক্টোবর ইভটিজিংয়ের প্রতিবাদ করায় ফরিদপুরের মধুখালী উপজেলা সদরের পশ্চিম গাড়াখোলা গ্রামের বাড়ি ফেরার পথে জেলার চিনিকলের কর্মচারী চাঁপা রানীকে গাড়ি চাপা দেয় রনি ও তার সহযোগিরা। পরে নিহতের ভাই অরুণ কুমার ভৌমিক বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন। এ মামলার দীর্ঘ শুনানি ও সাক্ষ্য প্রমাণ শেষে আদালত এ রায় ঘোষণা করেন।






মন্তব্য চালু নেই