মেইন ম্যেনু

ফরিদপুরের সালথায় দুই স্থানে প্রতিপক্ষের হামলায় আহত-৮, ২ জনের কারাদন্ড

ফরিদপুরের সালথায় দুই স্থানে প্রতিপক্ষের হামলায় ৮ ব্যাক্তি আহত হয়েছে। কেরাম বোর্ড খেলা নিয়ে উপজেলার সোনাপুর ইউনিয়নের ফুকরা গ্রামে প্রতিপক্ষের হামলায় একই পরিবারের ৫ জন আহত হয়।

গত শনিবার রাতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। প্রত্যাক্ষদর্শীরা জানান, কেরাম বোর্ড খেলা নিয়ে ঘটনার দিন সন্ধায় ফুকরা গ্রামের ফয়েজ আলী ফকিরের ছেলে আশরাফ ফকির ও কুদ্দুছ শেখের ছেলে এনামুলের কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতি হয়। এরই সুত্রধরে এনামূলের বাবা কুদ্দুস শেখ ৮-১০ জন লোক নিয়ে রাতে ফয়েজের বাড়িতে হামলা চালায়। এসময় হামলা ঠেকাতে আসা লোকজনের উপর কুদ্দুসের লোকজন হামলা করে। এতে আলমগীর মাতুব্বার (৩৫), বক্কার মাতুব্বার (৪৫) ও সবুজ (১৬) সহ ৫ ব্যাক্তি আহত হয়। আহতদের ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল ও নগরকান্দা স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে।

এদের মধ্যে আহত বক্কার মাতুব্বারের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানা গেছে। অন্যদিকে উপজেলার গট্টি ইউনিয়নের মেম্বার গট্টি গ্রামে ক্রিকেট খেলা নিয়ে সংঘর্ষে ৩ জন আহত হয়েছে। এ ঘটনায় ২ যুবককে কারাদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। জানা গেছে, গত শনিবার দিবাগত রাতে মেম্বার গট্টি গ্রামে রফিক মেম্বারের দলের সাথে মুনান কাজীর দলের সংঘর্ষ ও ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। এঘটনায় কমপক্ষে ৩ ব্যক্তি আহত হয়। আতদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

এ ঘটনার খবর পেয়ে সালথা থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এসময় সুমন শেখ (২০) ও আরিফ শেখ (২৫) নামে ২ যুবককে আটক করা হয়। পরে আটককৃতদের ভ্রাম্যমান আদালতে হাজির করা হলে আদালতের বিচারক উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট বিশ্বাস রাসেল হোসেন ২ যুবককে ১ মাস করে বিনাশ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন। ফুকরা গ্রামের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে সালথা থানার সেকেন্ড অফিসার এসআই মোঃ ওয়াহিদুজ্জামান বলেন, হামলার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকে পাইনি।

তবে হাসপাতালে রোগী ভর্তি আছে। তারা অভিযোগ করলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে। অন্যদিকে গট্টিতে যে ঘটনা ঘটেছে, ওখান থেকে ২ জনকে আটক করে ভ্রাম্যমান আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই