মেইন ম্যেনু

‘প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনা ভিত্তিহীন ও গুজব’

প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের ঘটনাকে ভিত্তিহীন ও গুজব বলে দাবি করেছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

বুধবার বিকেলে মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি করা হয়।

মন্ত্রণালয়ের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, পরীক্ষা শুরুর পর দিন থেকে অদ্যাবধি বিভিন্ন সামাজিক ও গণমাধ্যমে প্রশ্নপত্র ফাঁস সংক্রান্ত বিভিন্ন বিভ্রান্তিকর সংবাদ প্রচার করা হচ্ছে। প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়টি মন্ত্রণালয় প্রথম থেকে গুরুত্ব সহকারে বিচার বিশ্লেষণ ও নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করে আসছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, প্রশ্নপত্র ফাঁস সংক্রান্ত সংবাদে জনমনে উদ্বেগ ও সৃষ্ট অনাকাঙ্ক্ষিত পরিস্থিতি অনুধাবন করে বুধবার মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বিষয়টি গভীরভাবে পর্যালোচনা করেছেন এবং সার্বিক পর্যালোচনা শেষে মন্ত্রণালয় নিশ্চিত হয় যে, ফেসবুকসহ বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশিত প্রশ্নের সাথে সমাপনী পরীক্ষায় সরবরাহকৃত প্রশ্নের কোনো সামঞ্জস্য নেই।

এছাড়া ফেসবুকে প্রাপ্ত প্রশ্ন/সাজেশন এবং এ যাবত অনুষ্ঠিত পরীক্ষার প্রশ্নপত্র পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে মিলিয়ে দেখা হয়। কোনো প্রযুক্তিগত ত্রুটি বিচ্যুতির কারণে এ ধরনের ঘটনার উদ্ভব কিনা, তা-ও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে পরীক্ষার্থীদের ভবিষ্যৎ চিন্তা করে চলমান সমাপনী পরীক্ষা সম্পর্কে এ ধরনের ভিত্তিহীন, অসত্য, উদ্দেশ্যপ্রণোদিত ও সন্দেহমূলক সংবাদ প্রচার না করা এবং শিক্ষার্থীদের সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা সম্পন্ন করার ব্যাপারে সার্বিক সহযোগিতার জন্য সর্বস্তরের জনগণ ও গণমাধ্যমের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়।

এ ব্যাপারে অভিভাবকদেরও অহেতুক উদ্বিগ্ন না হওয়ার জন্য অনুরোধ জানায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়।

প্রসঙ্গত, গত ২৩ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী পরীক্ষায় দেশের বিভিন্ন স্থানে বাংলাসহ কয়েকটি বিষয়ে প্রশ্ন ফাঁস হয়েছে বলে অভিযোগ ওঠে। এবার প্রাথমিক ও ইবতেদায়ী শিক্ষা সমাপনী পরীক্ষায় প্রায় ৩১ লাখ পরীক্ষার্থী অংশ নিয়েছে। আগামী রোববার এ পরীক্ষা শেষ হচ্ছে।






মন্তব্য চালু নেই