মেইন ম্যেনু

প্রথম দিন শেষে যা বললেন সাকিব

অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে এখনো টেস্ট খেলা হয়নি সাকিব আল হাসানের। এ ছাড়া টেস্ট খেলেড়ু অন্যান্য সব দেশের সঙ্গে সাদা জার্সিতে মাঠে নেমেছেন দেশসেরা এই অলরাউন্ডার।

সাকিব সাধারণ কোন ক্রিকেটার নন, তা সবারই জানা। ব্যতিক্রমী এই ক্রিকেটার শনিবারও ব্যতিক্রম এক কাজ করলেন। মিরপুরে জিম্বাবুয়ের ইনিংস একাই ধসিয়ে দেন সাকিব। তুলে নেন ৬ উইকেট।

অসাধারণ বোলিং স্পেল দিয়ে অস্ট্রেলিয়া বাদে সবগুলো দলের বিপক্ষে ৫ বা তার বেশি উইকেট নেওয়ার কৃতিত্ব গড়লেন সাকিব। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে এর আগে দুবার ৪ উইকেট নিয়েছিলেন। শনিবার মিরপুরে সেই আক্ষেপটাও পূর্ণ করলেন মাগুরার এই তারকা।

ঢাকা টেস্টের প্রথম দিন শেষে সেরা পারফর্মার হিসেবে সংবাদমাধ্যমের সামনে আসেন সাকিব। একাধিক বিষয় নিয়ে কথা বলেন তিনি। আওয়ার নিউজ বিডির পাঠকদের জন্যে তা তুলে ধরা হল:

প্রশ্ন : এই টেস্টে ভালো খেলার কোন প্রেরণা কাজ করেছিল ?

সাকিব : ও রকম কিছু না। ভালো খেলার চেষ্টা ছিল। দলের জন্যে কন্ট্রিবিউট করার ইচ্ছে ছিল। এটা করতে পেরেছি, এ জন্য অনেক খুশি।

প্রশ্ন :  সব সময় আমরা লক্ষ্য করি আপনি বিশেষ সময়ে বেশি ভাল পারফর্ম করেন। ভালো পারফর্ম করে আনন্দ উদযাপন করেন কীভাবে ?

সাকিব :  না। ওরকম কিছু না। তবে একটু ভাগ্যবান মনে হয়।  অনেক কিছ্ইু হতে পারে। দিন শেষে পারফরমেন্স দিয়ে সবকিছু মূল্য করা হয়। মাঠের খেলা যতক্ষণ ভাল আছে, ইনশাল্লাহ সব ঠিক থাকবে। ওটাই আসলে সব সময় চেষ্টা করি।

প্রশ্ন : সর্বশেষ টেস্টে আপনার পারফরমেন্স কি মনে আছে ?

সাকিব : শ্রীলঙ্কার সঙ্গে নট আউট ছিলাম বোধ হয় ব্যাটিংয়ে। ২-৩ উইকেট হয়তো পেয়েছিলাম।

প্রশ্ন : দেশের মাটিতে এর আগে কখনো এতো বাউন্সি উইকেট পেয়েছেন?

সাকিব : না। এতো বাউন্সি উইকেট পাইনি। আজকের উইকেট থেকে ধারবাহিকভাবে বাউন্স পাচ্ছিলাম।

প্রশ্ন :  মাঠে নামার আগে যে পরিকল্পনা ছিল, দিন শেষে সেই পরিকল্পনা কতুটুক সার্থক?

সাকিব : আমাদের দ্রুত উইকেট নেওয়ার একটা পরিকল্পনা ছিল। টিম মিটিংয়ে সবাই আমরা এটা আলোচনা করেছি। টেস্ট ম্যাচে দ্রুত উইকেট খুব গুরুত্বপূর্ণ। প্রথম এক ঘণ্টার মধ্যে সেই কাজটা করতে পেরেছি। ওটা আমাদের জন্য একটা ভাল শুরু ছিল।

প্রশ্ন : অস্ট্রেলিয়া ছাড়া বাকি সবগুলো টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিপক্ষে ৫ উইকেট নিয়েছেন ?

সাকিব : হ্যাঁ। আলাদা কিছু করিনি। ভালো বোলিংয়ের চেষ্টা করেছি। পরবর্তীতে যদি অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে খেলা হয়, আর যদি ৫ উইকেট পেয়ে যাই, তাহলে ভাল একটা অভিজ্ঞতা থাকবে। যখন ক্রিকেট ক্যারিয়ার শেষ করব, তখন ভাল একটা অনুভূতি অবশ্যই থাকবে।

প্রশ্ন :  আপনার সঙ্গে আরো ২ জন স্পিনার যোগ হয়েছে, বিষয়টি আপনি কীভাবে দেখছেন?

সাকিব : সব সময় এটা বড় একটা ব্যাপার। ৩-৪ জন অ্যাটাকিং বোলার, উইকেট-টেকিং বোলার থাকলে শুধু বোলিং ইউনিটের জন্যই না, দলের জন্যই ভালো।

প্রশ্ন :  ব্যাটসম্যানদের কাছে আপনার কী পরামর্শ থাকবে?

সাকিব : যতক্ষণ সম্ভব ব্যাটিং করা।

প্রশ্ন :  প্রথম ইনিংসে কত রান হলে নিরাপদে থাকবেন?

সাকিব : যদি ৪০০ করতে পারি খুবই ভাল। উইকেট যে খুবই ব্যাটিং সহায়ক তা নয়।  আমার কাছে মনে হয় আমাদের ওই ক্ষমতা আছে  ৩৫০-৪০০ করার। আমরা যদি এটা করতে পারি তাহলে ভালো। শুধু এটা নয়, হয়তো আমরা ৬০০ করতে পারি।

প্রশ্ন : ওদের স্পিনাররা কোন ফ্যাক্টর হতে পারে?

সাকিব : ওদের পেস বোলাররাও কিন্তু ভালো বল করেছে। ৮-১০ ওভার ওরা ভালো বল করেছে। আমাদের ব্যাটসম্যানরাও ভাল করেছে। তামিমের বলটা বেশ ভালো ছিল।  আমার  কাছে মনে হয় আমাদের অভিজ্ঞতাটা ভালো এবং এই কন্ডিশনে খেলে অভ্যস্ত।






মন্তব্য চালু নেই