মেইন ম্যেনু

নোয়াখালীতে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করায় আটক ১

এম.এ আয়াত উল্যা, স্টাফ রিপোর্টার, নোয়াখালী : নোয়াখালীতে ফেইসবুক স্ট্যাটাস পোষ্ট এর মাধ্যমে ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত করার অপরাধে ২২ মার্চ ২০১৭ইং সুধারম মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেনের নির্দেশে এস আই মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন ও এস আই সাঈদ মিয়া ২২ মার্চ রাত্রে ১০টায় ঢাকা মালিবাগ এলাকা থেকে আবুল বাশারকে গ্রেফতার করেছে সুধারাম থানার পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত আবুল বাশার বাড়ী নোয়াখালী সদর উপজেলার ১নং চর মটুয়া ইউনিয়নের ব্রর্ক্ষপুর সাকিনের (রাওলাদিয়া) রফিক সরকারের বাড়ী মৃত গোলাম সারোয়ার, মাতাঃ তাহেরা বেগম এর মেজ ছেলে আবুল বাশার, এবং তথ্য ও যোগা যোগ প্রযুক্তির ২০০৬ এর ৫৭ (২)ধারায় সুধারম থানার এস.আই মোহাম্মদ ইকবাল হোসেন একটি মামলা দায়ের করেন সুধারম থানা মামলা নম্বার ২৬ তারিখ ১৭/০৩/২০১৭ মামলার এজাহারে জানাযায় ১৬ মার্চ ২০১৭ ইং তারিখ ১৯.০০ ঘটিকার সময় সদর উপজেলার ১নং চরমটুয়ার চেয়ারম্যান, কামাল উদ্দিন বাবলু সুধারম মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ সাহেবকে মোবাইলে জানান যে অত্র থানাধীন চর মটুয়াস্থ উদয় সাধুর হাট এলাকার স্থানীয় লোক জন আবুল বাসার নামক ফেসইবুক আইডি হইতে নবী করীম হযরত মোহাম্মদ (সো:) এর চরিত্র নিয়ে কূটুক্তি তথা কূরুচিপূর্ণ মন্তব্য লিখিয়া ফেসইবুক স্ট্যাটাশ পোষ্ট করাকে কেন্দ্র করিয়া ব্রম্মপুর সাকিনে হাজার হাজার উওেজিত জনতা বিক্ষুব্দ অবস্থায় সমাবেত হইয়া আবুল বাশারের ফাঁসি চাই শ্লোগান দিয়া মিছিল করতে থাকে।

উক্ত সংবাদের ভিওিতে অফিসার ইনচার্জ সাহেরে এর নির্দেশ ক্রমে সঙ্গীয় অফিসার ও ফোর্স সহ ঘটনাস্থলে উপস্থিত হইয়া স্থানীয় লোকজনকে জিঞ্জাসাবাদে ঘটনার সত্যতা পাই, এবং আবুল বাশার পলাতক হয়ে যায়। ঘটনার আরো জানাযায় আবুল বাশার ফেসইবুক স্ট্যাটাশ পোষ্ট করে লেখেন ২৬ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ ইংতারিখ সন্ধ্যা ৭.৫০মিনিটে তার ফেইসবুক আইডি হইতে পোষ্ট করেন নবীকরিম হযরত মোহাম্মদ (সাঃ) এর চরিত্র নিয়ে কূটুক্তি তথা কূরচিতপূর্ণ স্ট্যাটাসটি করেন।

তিনি লেখন আমাদের প্রিয় নবীর নারী সংগী। খাদিজা বিনতে খালিদ, সাউদা বিনতে জামিআ, আয়েশা বিনতে আবু বকর, হাফসা বিনতে উমর, জয়নব বিনেতে খুজায়মা, হিন্দ্ বিনতে আবু উমাইয়া, জয়নব বিনতে জাইশ, জুয়ারিয়া বিনতে হারিথ, রায়হানা বিনতে জায়েদ, সাফিয়া বিনতে হুয়ায়া, রামিয়া বিনেতে আবু সুফিয়ান, মারিয়া আল কিবতিয়া, মামুনা বিনতে আল হারিথ।

এগুলো বাদেও জন পাঁচেক ছিল তার উপপন্থী এবং খাদেম। (এটি আরবি শব্দে যার অর্থ দাসী) সব মিলিয়ে ১৮ জনের সাথে সে তার কাম বাসনা, যৌনক্ষুধা মিটিয়েছিল । মারিয়া কিবতিয়া তার স্ত্রী নয়। মিশরের রাজা মুকাউকিস তাকে সেক্স ডল হিসাবে উপহার দিয়েছিলো। তার গর্ভে ইব্রাহিম নামে একটি ছেলে জন্ম নিয়ে অকালে মিত্যু বরন করেন।

এছাড়াও নবী করিম (সাঃ) ৫ থেকে ৭ টা বিয়ে করেছিলেন। এই বিষয় সুধারম থানার অফিসার ইনচার্জ আনোয়ার হোসেন জানান আবুল বাসারকে ঢাকা মালিবাগ থেকে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসা হয়।






মন্তব্য চালু নেই