মেইন ম্যেনু

নেপালে ক্ষতিগ্রস্থদের পাশে গণ বিশ্ববিদ্যালয় ও গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র

গত ২৫ এপ্রিল শনিবার নেপালে ঘটে যাওয়া প্রলয়ঙ্করী ভূমিকম্পে ব্যাপক ধবংসযজ্ঞ এবং চার হাজারেরও বেশী মানুষের প্রাণহানীর ঘটনায় উদ্বিগ্ন ও আতংকিত হয়ে পড়েছেন বাংলাদেশে অবস্থানরত সকল নেপালি নাগরিক ।

পরিবার ও প্রিয়জনদের সাথে যোগাযোগ করতে না পেরে মানসিক ভাবে ভেঙ্গে পড়েছে বাংলাদেশে পড়তে আসা নেপালী শিক্ষার্থী ও অন্যান্য শ্রেণী পেশার মানুষেরা । অনেকেই পরিবারের সাথে যোগাযোগ করতে না পেরে সড়ক পথেই রওনা দিয়েছেন খোঁজ না পাওয়া স্বজনের সন্ধানে ।

এদিকে নেপাল থেকে সাভারের গণ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়তে আসা শিক্ষার্থীর অনেকেই ভূমিকম্পে ব্যাপকভাবে আক্রান্ত এলাকার বাসিন্দা। ভুমিকম্পের পর পরিবারের খবর নিতে তারা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েন । ফোনে স্বজনদের না পেয়ে অশ্রু সিক্ত ও নির্ঘুম রাত কাটাতে হচ্ছে এসকল শিক্ষার্থীর । তবে তারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খোঁজ খবর নিয়েছেন স্বদেশে ঘটে যাওয়া অবস্থা সম্পর্কে ।

এ প্রসঙ্গে এমবিবিএস ১৩তম ব্যাচের নেপালি শিক্ষার্থী মতিন আনসারি বলেন, দেশ, জাতি ও স্বজনের এই কঠিন বিপদে তাদের পাশে থাকা আমাদের নৈতিক এবং মানবিক দায়িত্ব । আমাদের এ দায়িত্ব পালনে ও মানবতা বোধ থেকে আমরা যারা এখানে আছি তাদের সঙ্গে নিয়ে গণ বিশ্ববিদ্যালয় নেপালে ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক ও চিকিৎসা সহায়তার ব্যাবস্থা করেছে । এ জন্য আমরা কর্তৃপক্ষের কাছে গভীর ভাবে কৃতজ্ঞ ।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র, গণ বিশ্ববিদ্যালয় ও গণস্বাস্থ্য সমাজভিওিক মেডিকেল কলেজের পক্ষ থেকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ জানান, নেপালে ক্ষতিগ্রস্থদের জন্য আর্থিক ও চিকিৎসা সহায়তাসহ তাদের পক্ষ থেকে নেপালের উদ্দেশে একটি টিম পাঠানোর ব্যাবস্থা করা হয়েছে । এজন্য গণস্বাস্থ্য কেন্দ্র মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটিতে একটি একাউন্ট খোলা হয়েছে যার হিসাব নং – ১৭২ ।

উল্লেখ্য, ভূমিকম্পটির উৎপত্তিস্থল নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুর অদূরে পোখরার লামজুং-এ ।






মন্তব্য চালু নেই