মেইন ম্যেনু

নূর হোসেনকে ফেরতের আবেদন ভারতে নথিভুক্ত

নারায়ণগঞ্জে সাত খুনের প্রধান আসামি নুর হোসেনকে ফেরত চেয়ে আনুষ্ঠানিক আবেদন করা হয়েছে। সোমবার পশ্চিমবঙ্গের বারাসত আদালত বিষয়টি নিথভুক্তও করেছেন।

কলকাতায় বাংলাদেশের ডেপুটি হাইকমিশনার আবিদা ইসলাম বিকেলে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, গত ২২ জুন পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা অনুযায়ী বারাসতের আদালতে নূর হোসেনকে ফেরত চেয়ে আবেদন করেন তিনি। আদালত আবেদনটি নথিভুক্তও করেছেন।

এদিকে নূর হোসেনকে ফেরত দেয়ার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছে ভারতের কেন্দ্রীয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়। এর মধ্যে দু’দিনের বিদেশ সফরে আগামী বুধবার বাংলাদেশ যাচ্ছেন পররাষ্ট্র মন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। তার ঢাকা সফরের আগে বন্ধুত্বের বার্তা দিতে নয়াদিল্লি নূর হোসেনের প্রত্যর্পণ নিয়ে ইতিবাচক ইঙ্গিত দিল বলে মনে করা হচ্ছে।

গত ২৭ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের কাউন্সিলর নজরুল ইসলাম ও আইনজীবী চন্দন কুমার সরকারসহ সাত জন অপহরণ ও খুন হন। এই ঘটনায় অন্যতম অভিযুক্ত আওয়ামী লিগ নেতা নূর হোসেন পলাতক ছিলেন।

গত ১৪ জুন কলকাতার উপকণ্ঠে রাজারহাটের বাগুইহাটি এলাকা থেকে নূরকে গ্রেপ্তার করে পশ্চিমবঙ্গ পুলিশ। ১৯ জুন আনুষ্ঠানিকভাবে ঢাকাকে তা জানিয়ে দিয়েছে নয়াদিল্লি।

২০১৩ সালে বন্দী প্রত্যর্পণ চুক্তিতে স্বাক্ষর করেছে প্রতিবেশী ভারত ও বাংলাদেশ। ফলে নূর হোসেনকে ফেরত দেয়ার ক্ষেত্রে নয়াদিল্লির কোনও আপত্তি নেই বলেও জানা গেছে।
আট দিনের রিমান্ড শেষে সোমবার স্থানীয় সময় দুপুর ২টায় নূর হোসেন ও তার দুই সহযোগীকে পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগনা জেলার সদর বারাসাতের মুখ্য বিচার বিভাগের হাকিমের আদালতে তোলা হয়। এ উপলক্ষে সকাল ৯টার দিকে তিনজনকে বাগুইআটি থানা থেকে দেশবন্ধু নগর সরকারি হাসপাতালে স্বাস্থ্যপরীক্ষার জন্য নেয়া হয়।

এদিন তাদের বিরুদ্ধে রিমান্ড বা জামিন আবেদন করা হয়নি। আগামী ৬ জুলাই পর্যন্ত নূর হোসেন ও তার দুই সঙ্গীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। ৭ জুলাই তাদের আবারও আদালতে তোলা হবে।



(পরের সংবাদ) »



মন্তব্য চালু নেই