মেইন ম্যেনু

‘নিজামীর রায় ঘিরে অরাজকতার চেষ্টা দমন করা হবে’

জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলার রায়কে ঘিরে যে কোনো অরাজকতার চেষ্টা দমন করা হবে।

এজন্য আইন শৃঙ্খলাবাহিনীর পাশপাশি বিজিবিকে সতর্ক অবস্থায় রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান।

মঙ্গলবার দুপুরে সচিবালয়ে নিজ দফতরে স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন।

এর আগে মঙ্গলবার আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি এম ইনায়েতুর রহিম, বিচারপতি জাহাঙ্গীর হোসেন ও বিচারপতি আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বাধীন তিন সদস্যের বেঞ্চ বুধবার নিজামীর রায়ের দিন ধার্য করেন।

স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর রায়কে কেন্দ্র করে যারা অরাজকতা সৃষ্টি করবে, তাদের ছাড় দেওয়া হবে না। তা প্রতিহত করা হবে।’

তিনি আরো বলেন, ‘আগে যুদ্ধাপরাধীদের রায়ের সময় যেমন আইনশৃঙখলা বাহিনী কাজ করেছে, এখনো ঠিক সেইভাবে কাজ করবে।এ নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘রায় হবে কি না তা আদালতের বিষয়। সাধারণ মানুষ এ রায়ের বাস্তবায়ন চায়। সাধারণ মানুষ মাঠে নামবে না।’
ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেওয়ার অভিযোগের মামলায় ২০১০ সালের ২৯ জুন মতিউর রহমান নিজামীকে গ্রেফতার করা হয়। পরে একই বছরের ২ আগস্ট তাকে মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় গ্রেফতার দেখানো হয়। নিজামীর বিরুদ্ধে তদন্ত শেষে ৩৩৬ পৃষ্ঠার চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেয় তদন্ত সংস্থা। আর আনুষঙ্গিক কাগজপত্রসহ প্রায় আড়াই হাজার থেকে ৩ হাজার পৃষ্ঠার ডকুমেন্ট তৈরি করা হয়।

তদন্তের চূড়ান্ত প্রতিবেদনের ভিত্তিতে ২০১১ সালের ১১ ডিসেম্বর মতিউর রহমান নিজামীর বিরুদ্ধে মানবতাবিরোধী অপরাধের আনুষ্ঠানিক অভিযোগ ট্রাইব্যুনালে উপস্থাপন করে রাষ্ট্রপক্ষ। তার বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধ চলাকালে হত্যা, খুন, ধর্ষণ এবং অগ্নিসংযোগসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের ১৬টি অভিযোগ আনা হয়।






মন্তব্য চালু নেই