মেইন ম্যেনু

ধানমণ্ডির বাসায় লতিফ, যেকোনো মুহূর্তে গ্রেপ্তার

বিমানবন্দর ত্যাগ করে ধানমণ্ডির বাসভবনে গেছেন লতিফ সিদ্দিকী। রোববার রাত ৯টা ২৬ মিনিটে তিনি ইমিগ্রেশনের সব আনুষ্ঠানিকতা সেরে পুলিশ প্রহরায় একটি প্রাইভেট কারে করে বাসায় যান। এখন সেখানেই অবস্থান করছেন। একাধিক মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা থাকায় যেকোনো মুহূর্তে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্ট সূত্র।

এর আগে রাত ৮টা ৪০ মিনিটে এয়ার ইন্ডিয়ার একটি ফ্লাইটে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছান লতিফ সিদ্দিকী। এরপর তিনি চামেলি ভিআইপি লাউঞ্জে ক্লিয়ারেন্সের জন্য অপেক্ষা করতে থাকেন।

এসময় তাকে গোয়েন্দা ও ইমিগ্রেশন কর্মকর্তারা ঘিরে রাখে। তাকে গ্রেপ্তার করা হবে নাকি বিদেশে ফিরিয়ে দেয়া হবে এ নিয়ে চলে আলোচনা। এসময় লতিফ সিদ্দিকী ফিরে যেতে অস্বীকৃতি জানান। তখন সব আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে পুলিশ প্রহরাতেই তিনি ভিআইপি গেট এড়িয়ে পাবলিট গেট দিয়ে বেরিয়ে বাসার উদ্দেশে রওনা হন।

তবে কোনো নির্দেশনা না থাকায় পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করতে পারছে না বলে জানা গেছে। স্পিকার ও সরকারের শীর্ষস্থানীয় থেকে গ্রিন সিগন্যাল পেলেই লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেপ্তার করা হবে বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সূত্রে জানা গেছে।

এদিকে বিমানবন্দরে অবতরণের পর যখন লতিফ সিদ্দিকী ভিআইপি লাউঞ্জে অবস্থান করছিলেন তখন এক যাত্রী তাকে জিজ্ঞেস করেন, ‘এতোগুলো মামলায় গ্রেপ্তারি পরোয়ানা নিয়ে আপনি দেশে ফিরলেন, কিছু হবে না?’ তখন লতিফ সিদ্দিকী স্বাভাবিকভাবে বলেন, ‘কেন? আমি তো এদেশেরেই নাগরিক।’

আরো জানা গেছে, সোমবার সংসদ অধিবেশনে যোগ দেয়ার কথা জানিয়েছেন লতিফ সিদ্দিকী। তিনি বলেছেন, তাকে মন্ত্রিপরিষদ ও দল থেকে বহিষ্কার করা হলেও তিনি এখনো সংসদ সদস্য আছেন। সুতরাং সেই অধিকারেই তিনি সোমবার অধিবেশনে যোগ দেবেন।






মন্তব্য চালু নেই