মেইন ম্যেনু

দ্বিতীয় স্ত্রী নিয়ে প্রথম শশুরবাড়িতে : সংঘর্ষে আহত ৫

মাগুরায় এক ব্যক্তি দ্বিতীয় বিয়ে করে নতুন স্ত্রী নিয়ে প্রথম শশুরবাড়ি বেড়াতে এসেছিলেন। এ নিয়ে দুপক্ষের সংঘর্ষে অন্তত পাঁচ জন আহত হয়েছেন। এ সময় ১০টি বাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। সংঘর্ষে জড়িত সন্দেহে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে মাগুরার মহম্মদপুর উপজেলার নহাটা ইউনিয়নের খলিশাখালী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষ্যদর্শীরা জানায়, খলিশাখালী গ্রামের ফরিদ মুন্সির মেয়ে রুনার (২৭) সঙ্গে ফরিদপুরের সাগর নামের এক যুবকের তিন বছর আগে বিয়ে হয়। তাদের একটি কন্যা সন্তান রয়েছে।

ঘটনার সময় সন্ধ্যা ৭টার দিকে সাগর দ্বিতীয় বিয়ে করে নতুন স্ত্রী নিয়ে প্রথম পক্ষের শশুর ফরিদ মুন্সির বাড়ি বেড়াতে আসেন। এ ঘটনায় শশুরবাড়ির লোকজনের সঙ্গে তার বাকবিতণ্ডা হয়।

বিষয়টি নিষ্পত্তির জন্য গ্রাম্য মাতবর দাউদ বিশ্বাস ও হিসাম মোল্যা সালিশি বৈঠকে বসেন। বৈঠকে সাগরকে ৩০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। দাউদ বিশ্বাস দূরসম্পর্কের আত্মীয় সাগরের পক্ষ নিয়ে সালিশের রায় মানেন না বলে চলে যেতে চাইলে উভয় মাতবরের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।

সংঘর্ষে দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দুই মাতবরের সমর্থকরা একে অপরের বাড়িতে হামলা চালায়। প্রায় আধা ঘণ্টা স্থায়ী সংঘর্ষে উভয়পক্ষের পাঁচ জন আহত হন এবং ১০টি বাড়িঘর ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। পরে পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

সংঘর্ষে জড়িত সন্দেহে নান্নু (৩০) ও বাহার চৌধুরি (৩৫) নামের দুইজনকে আটক কেেছ পুলিশ।

মহম্মদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মতিয়ার রহমান বলেন, ‘পরিস্থিতি এখন নিয়ন্ত্রণে। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।’






মন্তব্য চালু নেই