মেইন ম্যেনু

দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন ফলের ৭টি দারুণ অদ্ভুত ব্যবহার

বিভিন্ন রকম ফল তো এতদিন খাওয়া বা রূপচর্চার কাজে ব্যবহার করেছেন। কিন্তু আপনি কি জানেন, নানা রকম ফল আর ফলের খোসা দিয়ে আপনি দৈনন্দিন জীবনের নানা সমস্যার সমাধান করতে পারেন নিমেষেই? হাতের কাছের লেবুর টুকরোটিই হতে পারে ডিওডোরেন্ট অথবা আনারসের রসেই হয়ে যেতে পারে কফ সিরাপের কাজ! আসুন জেনে নেই বিভিন্ন রকম ফলের দারুণ অদ্ভুত কিছু ব্যবহার।
১। লেবু যখন ডিওডোরেন্টঃ

ডিওডোরেন্ট ফুরিয়ে গেছে? অথচ এই গরমে ঘামের গন্ধ থেকে রেহাই পেতে চাইছেন? কোন সমস্যা নেই। গোসল করে ফেলুন আর তারপর বগলে লাগিয়ে নিন খানিকটা লেবুর রস। হয়ে গেলো কমপক্ষে কয়েক ঘন্টার ডিওডোরেন্টের সতেজতার কাজ।
২। আনারসের রস যখন কাশির সিরাপঃ

খুশখুশে কাশিতে ভুগছেন। অথচ কাশির সিরাপ নেই ঘরে। আবার সেই সাথে সিরাপেরও কিন্তু আছে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া। তাই আনারস জুস বানিয়ে খেয়ে ফেলুন। দেখবেন কাশি গায়েব!
৩। কলার খোসায় সাদা দাঁতঃ

হলদে দাঁতের হাসি আর যাই হোক কারো মন জয় করতে পারে না। ডাক্তারের পেছনে পয়সা নষ্ট না করে। কলার খোসা দীয়ে নিয়মিত কিছুদিন দাঁত ঘষুন। প্রাকৃতিক ভাবেই পেয়ে যাবেন ঝকঝকে সাদা দাঁত।
৪। পায়ের যত্নে পেঁপের খোসাঃ

পেঁপে খাবার পর খোসাটা তো আমরা ফেলেই দেই। কিন্তু ফেলে দেবার আগে সেটি দিয়ে আপনার পায়ের পাতা ও গোড়ালী একটু ঘষে নিন। ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এটি আপনার পা রাখবে কোমল আর মুক্তি দেবে গোড়ালী ফাটার সমস্যা থেকেও!
৫। আলুর খোসায় চুলের রংঃ

আলুর খোসা ছাড়িয়ে ফেলে দেবেন না। এরও আছে দারুণ গুণ। আলুর খোসাগুলো ৩০ মিনিট পানিতে সেদ্ধ করে নিন। শ্যাম্পু করার পর এ পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। পাকা চুলের জন্যে যারা কেমিকেল রঙ ব্যবহার করতে ভয় পান তাদের চুলে এটি প্রাকৃতিক ভাবেই এটি ধীরে ধীরে কালো করার কাজটি করবে।
৬। ধাতব আসবাব পরিস্কারে লেবুর খোসাঃ

ধাতব আসবাব পরিস্কারে একটু লেবুর রসের সাথে সামান্য বেকিং সোডা মিশিয়ে মুছে নিন। ব্যস! আপনার আসবাব হয়ে যাবে নতুনের মতই চকচকে।
৭। দুঃস্বপ্ন এড়াতে আপেলের রসঃ

প্রচন্ড মানসিক চাপে ভুগছেন আর সেই সাথে প্রতি রাতে দুঃস্বপ্নের কারনে ঘুমুতে পারছেন না? এক কাজ করুন। ঘুমুবার আগে এক গ্লাস আপেলের জুস খেয়ে নিন। গবেষণায় দেখা গেছে, ঘুমাবার আগে আপেলের রস আপনার ঘুম ভালো করে।

ব্যস, এবারে হাতের কাছের ফলগুলো দিয়েই সহজ সমাধান হোক আপনার সমস্যার। ভালো থাকুন!






মন্তব্য চালু নেই