মেইন ম্যেনু

দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ছাত্রলীগ কর্মী নিহত

পুর্ব শক্রতার জের ধরে রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজ ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধ হয়ে জীবন নামে এক ছাত্রলীগ কর্মী মারা গেছে। নগরীর রানীবাজার এলাকায় দুই পক্ষের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া ও সংঘর্ষের সময় জীবন গুলিবিদ্ধ হয়। পরে তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ (রামেক) হাসাপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন। জীবন কারিগর পাড়ার হোসেন শেখের ছেলে।

এ ঘটনায় আহত হলেন, মিয়াপাড়া এলাকার আওয়ামী লীগ নেতা আতিকুর রহমান কালুর ছেলে রেদওয়ানুল রহমান তুষার (২২)।

স্থানীয়রা জানান, পুর্ব শক্রতার জের ধরে রাজশাহী সিটি কলেজের সভাপতি রবিন গ্রুপের সঙ্গে ছাত্রলীগ নেতা তুহিন গ্রুপের মধ্যে ধাওয়া পাল্টা-ধাওয়া, সংঘর্ষ ও গুলিবিনিময়ের ঘটনা ঘটে। এসময় রবিন গ্রুপের জীবন গুলিবিদ্ধ হয়। স্থানীয় লোকজন আহত জীবনকে উদ্ধার করে রামেক হাসপাতালের জরুরি বিভাগে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক সাইফুল ইসলাম তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ছাত্রলীগের এক কর্মী জানান, বিকেলে রাজশাহী সিটি কলেজের সভাপতি রবিন মোবাইল ফোনে তুহিনকে সিটি কলেজের কাছে ডেকে নেয়। এসময় রবিন গ্রুপের ছেলেরা তুহিনকে মারপিট করে। ঘটনার জের ধরে সন্ধ্যায় তুহিনের পিতা রাজশাহী মহানগরীর বোয়ালিয়া থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি আতিকুর রহমান কালু বোয়ালিয়া থানায় অভিযোগ করেন।

সন্ধ্যার পরে রবিন ৫০ থেকে ৬০ জন নিয়ে গণকপাড়া এলাকায় আওয়ামী লীগ নেতা কালুর চেম্বারে হামলা ও মোটরসাইকেল ভাঙচুর চালায়। রবিন গ্রুপের ছেলেরা ধারালো দিয়ে কুপিয়ে আওয়ামী লীগ নেতা আতিকুর রহমান কালুর বড় ছেলে রেদওয়ানুল রহমান তুষারকে আহত করে।

এসময় উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া, পাল্টা-ধাওয়া, সংঘর্ষ ও গোলাগুলি শুরু হয়। এতে গুলিবিদ্ধ হয়ে রবিন গ্রুপের জীবনের মাথার পিছনে ডানদিকে গুলি লাগে। পরে হাসপাতালের জরুরি বিভাগে জীবনের মৃত্যু হয়। ঘটনায় গুরুতর আহত তুষারকে রামেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বোয়ালিয়া থানার ওসি তদন্ত মাহমুদুর রহমান জানান, ছাত্রলীগ ও আওয়ামী লীগের অভ্যান্তরীন বিষয় নিয়ে এই সংঘর্ষের ঘটনাটি ঘটেছে। পরিস্থিতি বর্তমানে নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।

রাজশাহী মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের সহকারী কমিশনার ইফতে খায়ের আলম জানান, ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় এ হতাহতের ঘটনা ঘটে। নিহত জীবন শেখ ছাত্রলীগ কর্মী।






মন্তব্য চালু নেই