মেইন ম্যেনু

‘দক্ষিণখানের জঙ্গি আস্তানায় মেজর জাহিদের স্ত্রী’

রাজধানীর দক্ষিণখানের আশকোনায় হাজিক্যাম্পের কাছে জঙ্গি আস্তানা সন্দেহে ঘিরে রাখা বাড়িটিতে নিহত জঙ্গি মেজর জাহিদের স্ত্রী জেবুন্নাহার শিলা ও জঙ্গি তানভীর কাদেরির ছেলে আফিফ কাদেরি অবস্থান করছেন বলে ধারণা করছে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিট (সিটি)।

কাউন্টার টেররিজমের এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা বলেন, আমরা তাদের অবস্থানের বিষয়ে নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করছি। তাদের জীবিত আটকের চেষ্টা করা হচ্ছে। সেজন্য বারবার আত্মসমর্পণের আহ্বান জানানো হচ্ছে। আত্মসমর্পণ না করলে আস্তানা গুড়িয়ে দেয়া হবে।

দক্ষিণখান আশকোনায় হাজিক্যাম্পের কাছে তিনতলা বাড়িটিতে ওই আস্তানায় অভিযান চালানোর জন্য শনিবার মধ্য রাত থেকে ঘিরে রাখে পুলিশের কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিট (সিটি)।

ডিএমপি’র একটি সূত্র জানিয়েছে, অভিযানের ব্যাপারে নীতি নির্ধারনি ও কৌশলগত বিষয় সিদ্ধান্ত নেয়ার আগে ঘটনাস্থল উপস্থিত হয়েছেন ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া। তার সিদ্ধান্ত মিললেই নব্য জেএমবি’র আস্তানায় অভিযান শুরু হতে পারে।

জঙ্গি আস্তানার চারপাশ এলাকায় বিপুল সংখ্যক র্যাব-পুলিশ, ডিবি সদস্যসহ আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। ফায়ার সার্ভিসের সদস্যদের সেখানে দেখা গেছে।

সকালে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ইউনিট (সিটি)প্রধান মনিরুল ইসলাম সকালে সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, তিনতলা ওই বাড়িটিতে আস্তানা গেড়েছে নব্য জেএমবি। ‘নব্য জেএমবি’র এক শীর্ষ নেতা’ সেখানে অবস্থান করছে। তাদের কাছে শক্তিশালী গ্রেনেড বোমা রয়েছে। এ ছাড়া নারী জঙ্গিসহ একাধিক জঙ্গি রয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা আত্মসমর্পণের জন্য জঙ্গিদের প্রতি বারবার আহ্বান জানাচ্ছি। কিন্তু তারা এখন পর্যন্ত সাড়া দেয় নি। বরং শরীরে গ্রেনেড বেঁধে প্রতিরোধের ঘোষণা দেয়া হচ্ছে ভেতর থেকে।

তিনি বলেন, তিন তলা ওই ভবনের নারী ও শিশুসহ সকল আবাসিক বাসিন্দাকে সরিয়ে নেয়া হয়েছে। পুরো ভবন এলাকা ঘিরে রেখেছে পুলিশ। যে কোনো সময় অভিযান চালানো হতে পারে।






মন্তব্য চালু নেই