মেইন ম্যেনু

তারেক জাতীয় নেতায় প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন

বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমান আলোচনা সমালোচনার মাধ্যমে ইতোমধ্যেই জাতীয় নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন দাবি করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

তিনি বলেছেন, ‘সবসময় শুধুমাত্র ডিফেন্সে খেললে দল জিতে না। দলকে জিতিয়ে আনতে আক্রমণ ভাগে খেলতে হয়। তাই
রাজনীতির মাঠে তারেক রহমান এখন আক্রমণ ভাগে খেলছেন। আমরা যদি এখন বল জোগান না দিতে পারি তাহলে গোল কিংবা জয়লাভ সম্ভব নয়।’

বুধবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের ৫০তম জন্মদিন উপলক্ষে দক্ষিণখান থানা বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় গয়েশ্বর এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘বর্তমানে তারেক রহমান লন্ডনে থেকে আওয়ামী লীগের প্রতি একের পর এক আক্রমণ ছুড়ে দিচ্ছেন। যে কারণে তারেক রহমান আওয়ামী লীগের আতঙ্কে পরিণত হয়েছেন। এখন আমরা যদি রক্ষণভাগে থেকে ঠিকমতো বল পাস দিতে না পারি তাহলে দল জিতবে না। তাই দলকে জেতাতে সবাইকে আন্দোলনে ঝাঁপিয়ে পড়তে হবে।’

তারেক রহমান জাতীয় নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে দাবি করে গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘শেখ মুজিব কথা বলে শীর্ষে উঠেছিলেন তেমনি কথা না রাখতে পারায় মাটিতে পতিত হয়েছেন। পক্ষান্তরে তারেক রহমান আলোচনা সমালোচনার মাধ্যমে ইতোমধ্যেই জাতীয় নেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন। কারণ তার দল বিএনপির একটা গৌরবময় ঐতিহ্য রয়েছে। তার পিতা জিয়াউর রহমান বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছেন এবং রণাঙ্গনে যুদ্ধকরে দেশকে স্বাধীন করেছেন।’

বিএনপির মধ্যে সরকারের এজেন্ট রয়েছে দাবি করে গয়েশ্বর রায় বলেন, ‘আমাদের দলের মধ্যেও কিছু কিছু লোক সরকারের হয়ে কাজ করছে। এদেরকে চিহ্নিত করতে হবে। আন্দোলনের ডাক দিলে এদেরকে মাঠে পাওয়া যায় না। অথচ দলের মধ্যে ফ্যাসাদ সৃষ্টি করতে এরা সদা তৎপর থাকে। অনেক সময় অস্ত্র নিয়েও ঘোরাফেরা করে। কমিটি করার সময় এদেরকে চিহ্নিত করতে হবে।’

দক্ষিণখান থানা বিএনপির সেক্রেটারি ইসমাইল হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন- বিএনপির যুগ্মমহাসচিব বরকতুল্লাহ বুলু, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক আব্দুস সালাম প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই