মেইন ম্যেনু

তাদের সমালোচনা শুনে হাসব না কাঁদব : কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, শিক্ষা খাতে যারা কিছুই করেননি তারা যখন সমালোচনা করেন তখন তা শুনে হাসবো না কাঁদবো বুঝতে পারি না।

রোববার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে গণতন্ত্রী পার্টি আয়োজিত স্মরণসভা ও আলোচনা সভায় তিনি এ কথা বলেন।

গনতন্ত্রী পার্টির সভাপতি প্রয়াত আহমেদুল কবির ও নূরুল ইসলামের মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষ্যে এ স্মরণ সভা এবং ‘যুদ্ধাপরাধীদের বিচার : জাতীয় ও আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধকতা’ শীর্ষক ওই আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়।

কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘কাজ করলে ভুল হয়, না করলে একটাও হয় না। আজকে শিক্ষাখাত নিয়ে অনেক সমালোচনা হচ্ছে। কিন্তু কথায় আছে, রোম থেকে প্যারিস নগরী ভাল দেখা যায়। ১ জানুয়ারি সরকার বিনামূল্যে বই দেয় তা অনেকের কাছে ডাল ভাত মনে হয়। কিন্তু যে সকল দেশ তা দিতে ব্যর্থ হয় তাদের কাছে কঠিন বিষয়।’

গণতন্ত্রী পার্টির প্রয়াত সভাপতি নূরুল ইসলাম হত্যাকাণ্ডের তদন্ত কাজ এগিয়ে যাচ্ছে বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘তদন্তের ব্যাপরে সরকারের কোন শৈথিল্য নেই। কিন্তু এই মামলায় সেই অর্থে কোন ক্লু নাই। যে মেয়ে ওই সময় তার বাসভবনে কাজ করতো তারও কোন হদিস নাই।’

ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি এবং বেসামরিক বিমান মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, ‘জামায়াতের আন্তর্জাতিক লবিং অত্যন্ত শক্ত। বিচার বাধাগ্রস্ত করতে জামায়াত নেতা মীর কাশেম আলী যুক্তরাষ্ট্রের একটি কোম্পানিকে ২৫ মিলিয়ন ডলার দেয়। তারপরও বিচার এগিয়ে যাচ্ছে।’

গণতন্ত্রী পার্টির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য প্রকৌশলী কামরুল আহসান খান পারভেজের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় উপস্থিত ছিলেন ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্য, গণতন্ত্রী পার্টির সাধারণ সম্পাদক নূরুর রহমান সেলিম, সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য মাহমুদুর রহমান বাবু, অধ্যাপক ডা. শহীদুল্লাহ শিকদার।






মন্তব্য চালু নেই