মেইন ম্যেনু

তথ্যমন্ত্রীর ওয়েবসাইট হ্যাকড

হ্যাকারদের কবলে পড়েছে তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর অফিসিয়াল ওয়েবসাইট। অশ্লীল সংবাদ প্রকাশ থেকে গণমাধ্যমকে বিরত রাখার আহ্বান জানিয়ে সোমবার এই হামলা চালিয়েছে সাইবার-৭১ হ্যাকার গ্রুপ। হামলা চালিয়ে ডিফিউজ করে রাখায় ওয়েবসাইটটি ব্লাকআউট হয়ে আছে। তবে ওয়েবসাইট সম্পূর্ণ অক্ষত রেখে শুধু হোমপেজ পরিবর্তন করা হয়েছে। পাশাপাশি ওয়েবসাইটের ‘দুর্বলতা’ গুলো ইমেইলের মাধ্যমে জানিয়ে দেয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।

হ্যাক করে ওয়েবসাইটে (http://www.hasanulhaqinu.info/) তথ্যমন্ত্রীকে ‘বাংলার নবাব’ হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে। অপরদিকে হ্যাক করার পর হ্যাকারদের ফেজবুক পেজে তথ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে একটি খোলা চিঠি প্রকাশ করা হয়েছে।

সেখানে তথ্যমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বলা হয়েছে, ‘আশা করি এর পূর্বেই আমাদের নাম বাংলাদেশি কোনো দৈনিক পত্রিকার পাতায় অথবা কোনো বাংলাদেশি মিডিয়ায় দেখে এসেছেন। হ্যাকার মানে দেশের শত্রু না, বরং তারা দেশের সাইবার স্পেসের নিরাপত্তায় কাজ করতে পারে। তাদের কি বোর্ডের ঝড়ের মাধ্যমে দেশের বিরোধীদের প্রতিবাদ এবং প্রতিরোধ করা যায় এটা আর কেউ না পারলেও “সাইবার ৭১” কিন্তু ঠিকই প্রমাণ করে গেছে সবার কাছে।

বাইরের দেশে হ্যাকারদেরকে আইটি স্পেশালিস্ট হিসেবে সর্বোচ্চ মূল্যয়ন করা হয়। আর আমাদের দেশে এখনো অনলাইন সিকিউরিটি নিয়েই কারো মাথাব্যথা নেই। দেশ ডিজিটাল করতে হলে অবশ্যই দেশের সাইবার স্পেসের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে হবে। একটা দেশের অনলাইন ব্যবস্থা যতখানি উন্নত, সেই দেশটা ততোবেশি এগিয়ে। পূর্বে সবার তুলনায় আপনি ইতিমধ্যেই দেশের অনলাইন জগত নিয়ে অনেক বেশি কাজ করে গেছেন বলে “সাইবার ৭১” আপনার নিকট কৃতজ্ঞ। তাই আশা করবো এই ব্যাপারগুলোও আপনি নজরে নেবেন।’

এতে আরও বলা হয়েছে, ‘ইতিমধ্যেই একটা ব্যাপার আপনার কাছেও হয়তো বেশ লক্ষ্যজনক হয়েছে যে, ইদানীং বেশ কিছু সংবাদ পোর্টাল বেশি ভিজিটরের আশায় নিউজের নামে অশ্লীল বাজে খবর ছড়িয়ে বিশ্ব গণমাধ্যমের বুকে বাংলাদেশের নাম খারাপ করে যাচ্ছে। আশা করি আপনি নিজেই এর বিরুদ্ধে আইন প্রণয়ন করবেন। আর যদি তারা তথ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে না থাকে অথবা তাদের নিয়ন্ত্রণ করা আপনাদের সম্ভব না হয় তাহলে ওদের দায়িত্ব আমাদের হাতে ছেড়ে দিন। ওদের সোজা করতে মন্ত্রণালয়ের কামান দাগার জন্য অপেক্ষা করার প্রয়োজন নেই… “সাইবার ৭১” ই যথেষ্ট।’






মন্তব্য চালু নেই