মেইন ম্যেনু

ডিসেম্বরের মধ্যে মোদির ফোন, তারপর সরকার পতন

ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক ফ্রন্টের (এনডিএফ) চেয়ারম্যান শেখ শওকত হোসেন নিলু দাবি করেছেন, তিনি বিএনপির কয়েকজন নেতার কাছ থেকে জেনেছেন- ডিসেম্বরের মধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি দুজন ব্যক্তিকে ফোন করবেন। একজন হচ্ছেন পুলিশের প্রধান, অন্যজন সেনাপ্রধান। এরপরেই নাকি পুলিশ আর কোনো কাজ করবে না। তখন সরকারের পতন ঘটানো যাবে।
শনিবার বিকেলে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সাগর-রুনি মিলনায়তনে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির ঢাকা মহানগর প্রতিনিধি সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ দাবি করেন।
বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘সীমা লঙ্ঘন করবেন না। কারণ, আপনাদের অনেক গোপন তথ্য আছে। ইট যদি মারেন তাহলে পাটকেল খেতে প্রস্তুত থাকবেন।’
‘বিএনপি ২০ দলের নামে রাজনীতিকে আটকে রেখেছে’ মন্তব্য করে নীলু বলেন, ‘৫ জানুয়ারির নির্বাচনে না গিয়ে ঐতিহাসিক ভুল করেছেন খালেদা।’
‘বিএনপিতে অনেক যোগ্য নেতা আছে তবে খালেদা জিয়া তাদের মূল্যায়ন করেন না’ বলেও অভিযোগ করেন নীলু। জোট ভাঙার জন্য এ বিষয়টাকেও বড় কারণ হিসেবে মনে করছেন তিনি।
বিএনপি চেয়ারপারসনের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘উনি নাকি সেনাবাহিনীকে ভালোবাসেন। আমরা জোটে থাকতে দাবি করেছিলাম ২৫ ফেব্রুয়ারি (পিলখানা হত্যা দিবস) জাতীয় শোক দিবস হিসেবে পালন করার জন্য। কিন্তু তিনি আমাদের বলে দিলেন, আমি এ জন্য কোনো দিবস পালন করবো না। কেন করবো না তাও বলবো না। আমি জানি উনি দুই জন ব্যক্তিকে পছন্দ করেন। আমি তা বলবো না। কারণ কারো ব্যক্তিগত ব্যাপারে আঘাত করতে চাই না।’
নিজ জোটের কর্মসূচি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘শ্রমিকের ৮০০০ টাকা বেতনের জন্য আমরা আন্দোলনে যাবো। মসজিদের ইমাম ও মন্দিরের পুরোহিতের জন্য সরকারি ভাতা চাই।’
অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- এনডিপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও এনডিএফের মহাসচিব আলমগীর মজুমদার, ন্যাপ ভাসানীর চেয়ারম্যান শেখ আনোয়ারুল হক, বাংলাদেশ ইসলামিক পার্টির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এমএ রশিদ প্রধান।






মন্তব্য চালু নেই