মেইন ম্যেনু

ডিমলায় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি দখল : ব্যবহার করছে স্থানীয়রা

হামিদা আক্তার, (নীলফামারী) : নীলফামারীর ডিমলা উপজেলার বালাপাড়া ইউনিয়নের সুন্দরখাতা ২নং সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের জমি জবর দখল করে অবকাঠামো নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। জানা যায়, একই এলাকার অতুল চন্দ্র অধিকারী, জয়দেব অধিকারী,শ্যামল অধিকারী, অজিন্দ্র অধিকারী, রমেশ অধিকারী, নিতাই অধিকারী ও সুভাষ চন্দ্র রায় উক্ত প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে খড়ের গাদা (পোয়াল পুজ) এবং বিদ্যালয়ের লেট্রিন তালা ভেঙ্গে নিয়মিত ব্যবহার করছেন তারা। এ বিষয়ে স্কুলের শিক্ষক, স্কুলের ম্যানেজিং কমিটি ও এলাকাবাসী তাদেরকে সতর্ক করা সত্বেও তারা মানছে বলে অভিযোগ করেন স্কুল কর্তৃপক্ষ। একই এলাকার মোজাম্মেল হক ও তার পুত্র শিবু (গরু ব্যবসায়ী) অতুল চন্দ্র অধিকারীর বিরুদ্ধে জমি জবরদখল করার প্রতিকার চেয়ে গত ১০জানুয়ারী/১৭ তারিখে ডিমলা থানায় একটি লিখিত অভিযোগ করেন। ডিমলা থানা পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে এবং পরে ঘটনাটি স্থানীয় ভাবে গন্যমান্য ব্যক্তি উক্ত ইউনিয়নের সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদুল ইসলাম চৌধুরী, ইউপি সদস্য আকবর আলী ও সাবেক ইউপি সদস্য মোঃ জব্বার আলীসহ স্থানীয় গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ বিষয়টি স্থানীয়ভাবে মিমাংশা করে দেন। স্থানীয় মিমাংশায় অতুল অধিকারীকে ১৬ শতাংশ জমি ছেরে দেওয়ায় ঐ জমি ৯ জন গ্রামবাসীকে দেওয়া হয়। তারা হলেন- আব্দুল জলিল ইমাম, আব্দুল আলী, মোজাম্মেল হক, শিবু হোসেন, শফিকুল, কঞ্চনাথ, কমল চক্রবর্তী। জমি ছেরে দিয়ে অতুল অধিকারী ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে। এ ঘটনায় সে মোজাম্মেল হকের পুত্র শিবুকেক বিভিন্ন হুমকি প্রদান অব্যাহত রাখে। পরবর্তীতে হুমকীর সম্মখীন হয়ে শিবু বিষয়টি স্থানীয় ইউপি মেম্বার ও এলাকাবাসীকে মৌখিক ভাবে অভিযোগ করেন। এ ঘটনায় স্কুল কমিটিসহ গ্রামবাসী হুমকীদাতার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের দাবী জানান।






মন্তব্য চালু নেই