মেইন ম্যেনু

জয়ের বেতন জাতি জানতে চায়

প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপদেষ্টা হিসেবে সজীব ওয়াজেদ জয় কত টাকা পায় জাতি তা জানতে চায়, বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় জাতীয় প্রেসক্লাবে তারেক রহমানের পঞ্চাশতম জন্মদিন উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক আলোচনা সভায় ফখরুল এ কথা বলেন। বাংলাদেশ ছাত্রফোরাম ও উত্তরাঞ্চল ছাত্রফোরাম এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

লতিফ সিদ্দিকী দু’টো কথা ফাঁস করে দেয়ায় তার চাকরি চলে গেছে উল্লেখ করে ফখরুল বলেন, ‘আওয়ামী লীগ ধর্মনিরপেক্ষতায় বিশ্বাস করে না। জয় উপদেষ্টা হিসেবে এক কোটি ষাট লাখ টাকা বেতন পান। লতিফ সিদ্দিকী জয়ের বেতন সম্পর্কে এমন কথা বললেও আওয়ামী লীগের কেউ তা অস্বীকার করেন না। অথচ সত্য কথা বলার দায়ে তার চাকরি চলে গেল।’

তিনি বলেন, ‘লতিফ সিদ্দিকী ওই মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন। তিনি বেতনসহ সব কাগজপত্র সই করেন। আজ জয়ের বেতনের বিষয়টির ব্যাখ্যা দেশবাসী জানতে চায়। কিন্তু আমরা এ বিষয়ে প্রশ্ন করেও জানতে পারিনি।’

এইচ টি ইমামকে আওয়ামী লীগের ইমাম আখ্যা দিয়ে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব বলেন, ‘ধর্মের কল বাতাসে নড়ে। নির্বাচন নিয়ে অনিয়মের কথা আমরা বারবার বলেছি, তারা অস্বীকার করেছেন। কিন্তু এখন এইচ টি ইমাম সব ফাঁস করে দিয়েছেন।’

ফখরুল বলেন, ‘নির্বাচনের সময় এইচ টি ইমাম ভোটের দায়িত্বে ছিলেন। তখন তার কোনো পদ ছিলো না। তিনি নির্বাচন কমিশনকে দিয়ে নির্বাচনের ফলাফল পাল্টে দিয়েছেন। আজকে সংবাদ সম্মেলন করে এইচ টি ইমাম চেষ্টা করেছেন তার বক্তব্য নাকচ করে দেয়ার জন্য। কিন্তু জনগণ যা বুঝার তা বুঝে গেছে।’

সভায় উদ্বোধনী বক্তব্য দেন গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী। বাংলাদেশ জাতীয় পার্টির সভাপতি আন্দালিব রহমান পার্থর সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন- সাংবাদিক মাহফুজ উল্লাহ, বিএনপির চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাংবাদিক শওকত মাহমুদ, যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী, সাংস্কৃতিক বিষয়ক সম্পাদক গাজি মাজহারুল আনোয়ার, সনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, ঢাকা মহানগর বিএনপির সদস্য সচিব হাবিবুন্নবী খান সোহেল, চেয়ারপারসনের বিশেষ সহকারী শামসুর রহমান শিমুল বিশ্বাস প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই