মেইন ম্যেনু

জোয়ারে ভেসে গেছে শিশু, ১০ গ্রাম প্লাবিত

বৃষ্টি ও পূর্ণিমার প্রভাবে সৃষ্ট অস্বাভাবিক জোয়ারের পানিতে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের উপকূলীয় অঞ্চলের অন্তত ১০টি গ্রাম প্লাবিত হয়েছে। এ সময় জোয়ারের পানিতে মনি (৬) নামে একটি শিশু ভেসে গেছে।
জোয়ারের পানিতে ভেসে যাওয়া শিশু একই উপজেলার চরপারবর্তী ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ডের আমিন সিমেনের বাড়ির মনির আহমদের মেয়ে।
শনিবার সন্ধ্যায় ঘরের পাশে জোয়ারের পানিতে দাঁড়িয়ে ছিল মনি। এ সময় ভাটা পড়লে জোয়ারের টানে পানিতে ভেসে যায় সে।
চরপারবর্তী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন জোয়ারের পানিতে শিশু মনি ভেসে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলামেইলকে জানান, এখন পর্যন্ত তার কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি।
এলাকাবাসী জানান, পূর্ণিমার প্রভাবে অস্বাভাবিক জোয়ার ও শুক্রবার থেকে প্রবল বর্ষণের ফলে উপজেলার চরপারবর্তী ইউনিয়নের কদমতলা, মৌলভী বাজার, মেহেরুন্নেছা, হাজীপাড়া, জনতা বাজার এলাকা স্বাভাবিকের চেয়ে পাঁচ ফুট অধিক উচ্চতার জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে।
এছাড়া চরহাজারী ইউনিয়নের মাছুমা দোনা, পূর্বচর, সত্তরিয়া গ্রাম, মুছাপুর ইউয়িনের জেলে পাড়া, চরফকিরা ইউনিয়নের দিয়ারা বালুয়া, গুচ্ছগ্রাম, চরকচ্ছপিয়া গ্রাম ও চরএলাহী ইউনিয়নের চরলেংটা গ্রাম জোয়ারের পানিতে প্লাবিত হয়েছে।
ক্ষতিগ্রস্থ এলাকাগুলোর কয়েকটি সড়ক ভেঙে জোয়ারের পানি প্রবেশ করায় বসতঘর, আমন ধান, মৎস্য খামার ও পুকুরের মাছ ভেসে গেছে। শ্রেণী কক্ষে পানি প্রবেশ করায় চরপার্বতী এস সি উচ্চ বিদ্যালয়ের কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। জলাবদ্ধতার কারণে বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে উপকূলীয় জনজীবন।
উপজেলা ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি ও রেড ক্রিসেন্টের দলপতি ইলিয়াছ মিয়া জানান, পূর্ণিমার প্রভাবে স্বাভাবিক জোয়ারের চাইতে প্রায় পাঁচ ফুট উচ্চতায় জোয়ারের পানি বেড়িবাঁধের উপর দিয়ে লোকালয়ে ঢুকে পড়ায় অনেকে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন।
কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) জালাল সাইফুর রহমান জানান, শনিবার তিনি প্লাবিত কয়েকটি গ্রাম পরিদর্শন করেছেন। অস্বাভাবিক জোয়ারের কারণে গ্রামগুলো প্লাবিত হয়েছে। তবে জোয়ারের পানি স্থায়ী নয় কিছুক্ষণ পর-পর আসে আবার চলেও যায়। জোয়ারে পানিতে কোনো পরিবার বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হলে তাদের জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
জোয়ারে শিশু ভেসে যাওয়ার ব্যপারে তিনি জানান, স্থানীয় চেয়ারম্যানের কাছ থেকে বিষয়টি তিনি নিশ্চিত হয়েছেন। এ ধরণের ঘটনা এড়াতে স্থানীয় জনপ্রতিনিধি ও সেচ্ছাসেবী সংগঠনের কর্মীদের মাধ্যমে উপকূলীয় অঞ্চলের জনগণকে সচেতন থাকতে বলা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই