মেইন ম্যেনু

জাতীয় ঐক্যের ডাক খালেদার

সরকার হটাতে জাতীয় ঐক্যের ডাক দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি বলেছেন, ‘সব কিছু ভুলে সকল মতাদর্শ ও পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি। আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে অনুষ্ঠিত সব নির্বাচন প্রশ্নবিদ্ধ। নির্দলীয় সরকারের অধীনেই জাতীয় নির্বাচন হতে হবে।’

বৃহস্পতিবার জাতীয় প্রেসক্লাবে বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন আয়োজিত ইফতার মাহফিলে তিনি এ কথা বলেন।

খালেদা জিয়া বলেন, ‘আমাদের মধ্যে রাজনৈতিক মতাদর্শগত পার্থক্য থাকতেই পারে। এখন এসব মনে রেখে লাভ নেই। আমাদের সবাইকে সবকিছু ভুলে একসঙ্গে সরকার পতনের আন্দোলনে কাজ করতে হবে। আমরা দেশের শান্তি, উন্নয়ন এবং কল্যাণ চাই। অন্যদিকে আওয়ামী লীগ দুর্নীতি লুটপাট ছাড়া কিছুই করতে পারে না।’

তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা ছাড়া কেউ ভালো নেই। বিদেশি বিনিয়োগ নেই, একের পর এক শিল্প কারখানা বন্ধ হয়ে যাচ্ছে, নতুন কোনো কর্মসংস্থান সৃষ্টি হচ্ছে না। প্রতিনিয়ত বেকারত্ব বৃদ্ধি পাচ্ছে। আওয়ামী লীগের দলীয় লোকজন ছাড়া কেউ চাকরি পাচ্ছে না। এভাবে আর চলতে দেয়া যায় না।’

এই সরকারের উন্নয়ন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘ঢাকায় সব সময় যানজট লেগেই থাকে। রাস্তাঘাটের বেহাল দশা, যানজটের কারণে ঘণ্টার পর ঘণ্টা রাস্তায় বসে থাকতে হয়। রাস্তাঘাটে নোংরা পরিবেশ।’

ছাত্রলীগের সাংবাদিক নির্যাতনের নিন্দা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগের হাতে সাংবাদিক নির্যাতনের ঘটনা অপ্রত্যাশিত। সবার মুখ বন্ধ করে দেয়া হচ্ছে। সত্য কথা বললে এভাবেই তাদের দলের নেতা-কর্মীদের হাতে প্রহৃত হতে হয়।’

অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ভিসি ড. এমাজ উদ্দিন আহমেদ, প্রো-ভিসি আ ফ ম ইউসুফ হায়দার, গণস্বাস্থ্যের প্রতিষ্ঠাতা ডা.জাফরুল্লাহ চৌধুরী, বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আরএ গণি, রফিকুল ইসলাম মিয়া, ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, এফইউজের সভাপতি শওকত মাহমুদ, সাবেক সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, জাতীয় প্রেসক্লাবের সভাপতি কামাল উদ্দিন সবুজ, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি কবি আব্দুল হাই শিকদার, সেক্রেটারি জাহাঙ্গীর আলম প্রধান, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সেক্রেটারি ইলিয়াস খান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই