মেইন ম্যেনু

জলমগ্ন ঢাকায় তীব্র যানজট

শনিবার সকাল থেকেই কখনো মুষল ধারে আবার কখনো বা থেমে থেমে বৃষ্টির কারণে তলিয়ে গেছে রাজধানীর ধানমণ্ডি, নিউমার্কেট, মোহাম্মদপুর, খিলগাঁও, আরামবাগ, মালিবাগ, মৌচাকসহ পুরান ঢাকার বেশির ভাগ এলাকার রাস্তাঘাট। অনেক এলাকায় দোকানপাট আর মাকের্ট এখন পানির দখলে। ডুবে গেছে ফুটপাত। এ যেন অথৈই জলে হাবু ডুবু খাচ্ছে রাজধানী।

বৃষ্টির সঙ্গে তাল মিলিয়ে পুরো রাজধানীতেই তীব্র যানজট দেখা গেছে। নারিন্দার বাসিন্দা মেহেদী মাসুম সকাল সকাল অফিসের উদ্দেশে বের হয়েছিলেন। কিন্তু রাস্তায় হাঁটুপানি আর টানা বৃষ্টি তার যাত্রায় বিঘ্ন ঘটালো। তিনি বলেন, ‘এমনিতেই রোজার মাস। অফিস সময় এগিয়ে নিয়ে আসা হয়েছে। আধা ঘণ্টা বৃষ্টি হলেই তলিয়ে যায় রাস্তা-ঘাট। ড্রেনের পঁচা পানি আর ডাস্টবিনের ময়লা মিশে একাকার হয়ে গেছে সব কিছু।’

নিউ মার্কেট এলাকার অনেক দোকানও পানিতে ডুবে যায়। শান্তিনগর, মালিবাগ, মৌচাক এলাকায় রাস্তায় হাঁটুপানি জমায় যান চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। পানি জমে যাত্রাবাড়ী নির্মাণাধীন ফ্লাইওভারের নিচের রাস্তাও।

ফুটপাতে পানি জমে থাকার কারণে রিকশা বা সিএনজি নিয়ে মালিবাগ রেলগেট থেকে শান্তিনগর মোড়ে আসতে দেড় ঘণ্টারও বেশি সময় লেগেছে বলে জানিয়েছেন একটি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে চাকুরিজীবী ফাহমিদা খান।

তিনি বলেন, ‘দুপুর দেড়টার দিকে মালিবাগ রেলগেট থেকে রিকশায় উঠে ৩টা ১০ মিনিটে এসে শান্তিনগর মোড়ে নেমেছি।’

রমজানের এ দিনে এমন অসহনীয় দুর্ভোগের কারণে কাউকে দোষ দিচ্ছেন না ফাহমিদা। এ নষ্ট শহরে থাকতে হলে এসব নিয়েই বাঁচতে হবে। তবে রিকশা থেকে নেমেও হাঁটু পানি পার হয়েই তাকে বাসায় যেতে হয়েছে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, শনিবার দুপুরে আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক শাহ আলম জানিয়েছেন, গত ছয় ঘণ্টায় ঢাকায় ৫২ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। তবে রোববার থেকে বৃষ্টির পরিমাণ কিছুটা কমে যাবে বলে মনে করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।






মন্তব্য চালু নেই